নেত্রকোণায় ইউএনওর ফোন নম্বর ক্লোন করে ‘প্রতারণার চেষ্টা’

দুইজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কাছে মদন ইউএনওর সরকারি নম্বর থেকে ফোন করে টাকা চাওয়ার পর নম্বরটি ক্লোন হওয়ার বিষয়টি নজরে আসে।

নেত্রকোণা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 01:36 PM
Updated : 26 July 2022, 01:36 PM

নেত্রকোণার মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি ফোন নম্বর ক্লোন করে টাকা চাওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দুপুরে দুইজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের কাছে সরকারি এই নম্বর থেকে ফোন করে টাকা চাওয়ার পর নম্বরটি ক্লোন হওয়ার বিষয়টি জানা যায়।

বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ কেএম লুৎফর রহমানের নজরে আসার পর তিনি সবাইকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে সোমবার বিকালে মদন উপজেলা প্রশাসনের অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে সতর্কতা জানিয়ে বলা হয়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মদন, নেত্রকোণার অফিশিয়াল মোবাইল নম্বর ক্লোন করে বিভিন্ন জনকে ফোন করা হচ্ছে। কোনো প্রকার আর্থিক লেনদেন না করার জন্য সবাইকে অনুরোধ করা হলো।

ইউএনও এ কেএম লুৎফর রহমান বলেন, গতকাল দুপুরে তিনি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে কাজে ছিলেন। দুপুর ১২টা থেকে ১টার মধ্যে সরকারি ফোন নম্বরটি ক্লোন করে তা থেকে মদন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খায়রুল ইসলাম ও ফতেপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সামিউল আলমকে ফোন করে ২৫ হাজার করে টাকা চায় ‘প্রতারকেরা’।

“প্রতারকেরা টাকা পাঠানোর জন্যে অন্য একটি বিকাশ নম্বর দেয় দুই চেয়ারম্যানকে। তখন এক চেয়ারম্যান মদন থেকে সরাসরি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আমার কাছে চলে আসেন এবং আরেকজন চেয়ারম্যান আমাকে ফোন করে বিষয়টি বলেন। তখন আমি বুঝতে পারি ফোন নম্বরটি ক্লোন করেছে প্রতারকেরা।”

ওই দুই চেয়ারম্যানকেও তিনি বিষয়টি বলেছেন বলে জানান।

ইউএনও আরও জানান, ওই দুইজন চেয়ারম্যান থানায় এ বিষয়ে সাধারণ ডায়েরি করবেন। তাছাড়া স্থানীয় সব দপ্তরের কর্মকর্তা ও উপজেলার চেয়ারম্যানদের ফোন করে বিষয়টি অবগত করা হয়েছে।

“এই দুইজন চেয়ারম্যান ছাড়া পরে আর কাউকে ফোন করে টাকা চাওয়ার তথ্য পাইনি। সরকারি ফোন নম্বর থেকে কারও কাছে টাকা চাইলে কেউ টাকা না দিয়ে আইনের আশ্রয় নেওয়ার অনুরোধ করছি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক