পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ: জেলা ছাত্রদল সভাপতির মৃত্যুতে ভোলায় হরতালের ডাক

ভোলা জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নূরে আলম পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন ছিলেন।

ভোলা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 August 2022, 12:10 PM
Updated : 3 August 2022, 12:10 PM

পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত জেলা ছাত্রদলের সভাপতির মৃত্যুর ঘটনায় ভোলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে বিএনপি।

ভোলা জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর বুধবার বিকালে বলেন, “জেলা ছাত্রদলের সভাপতি নূরে আলম পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন ছিলেন। আজ বেলা ৩টায় তিনি মারা গেছেন।

“এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেওয়া হয়েছে।”

লোডশেডিং ও জ্বালানি অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রোববার ভোলায় বিএনপি সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। সমাবেশ শেষে মিছিল বের হলে তাতে বাধা দেয় পুলিশ। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় দলটির নেতাকর্মীরা।

এতে পুলিশসহ দলটির অনেক নেতাকর্মী আহত হন। ওইদিন আবদুর রহিম নামে স্বেচ্ছাসেবক দলের এক সদস্য নিহত হন। জেলা ছাত্রদল সভাপতি নূরে আলমের মৃত্যুর ঘটনায় এ নিয়ে দুজনের মৃত্যু হলো। যদিও পুলিশের দাবি, আত্মরক্ষার্থে সেদিন তারা লাঠিপেটা করে এবং কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করে।

ওইদিনের সংঘর্ষে নূরে আলমের মাথায় গুলি লাগে। পরে তাকে ভোলা থেকে ঢাকায় নিয়ে এসে কমফোর্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে লাইফ সাপোর্টে থাকা অবস্থায় তিনি মারা যান।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মাকসুদ জানান, নূরে আলমের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রাখা আছে। বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্ত হবে।

পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় একটি এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মী আবদুর রহিম হত্যার ঘটনায় আরেকটি মামলা হয়েছে। এতে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর ও সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ ট্রুম্যানসহ বিএনপির চার শতাধিক নেতাকর্মীকে আসামি করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন:

Also Read: সংঘর্ষে আহত ভোলার ছাত্রদল নেতা নূর আলমের মৃত্যু

Also Read: ভোলায় পুলিশ ও বিএনপির সংঘর্ষ, নিহত ১

Also Read: ভোলায় সংঘর্ষ: পুলিশের ২ মামলায় আসামি ৪০০

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক