তিস্তা থেকে ৯২ কেজির বাঘাইর, বিক্রি ১,৩৮,০০০ টাকা

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের পাগলপাড়ায় মাছটি ধরা পড়ে।

নীলফামারী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Sept 2022, 04:43 PM
Updated : 14 Sept 2022, 04:43 PM

নীলফামারীতে তিস্তা নদীতে জেলের বরশিতে ৯২ কেজির একপি বাঘাইর মাছ ধরা পড়েছে।

বুধবার বিকালে নীলফামারী বড় বাজারে মাছটি বিক্রি হয়েছে ১ লাখ ৩৮ হাজার টাকায়। 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জেলার ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের পাগলপাড়া এলাকায় মাছটি ধরা পড়ে।

ডিমলা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ময়নুল হক বলেন, “আমি মাছ ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জেনেছি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পার্শ্ববর্তী খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের পাগলপাড়ায় তিস্তা নদীতে মাছটি ধরা পড়ে। বুধবার সকালে ডালিয়া বাজারে তিন মাছ ব্যবসায়ী সেটি কিনে নীলফামারী বড় বাজারে নিয়ে বিক্রি করেন।”

ডিমলা উপজেলার খগাখড়িবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রবিউল ইসলাম লিথন বলেন, “আমার ইউনিয়নের পাগলাপাড়া গ্রামের জেলে আমীর হোসেনসহ আরও পাঁচ থেকে ছয়জন যুবক মিলে তিস্তা নদীতে বরশিতে মাছ ধরছিলেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাদের বরশিতে একটি বিশাল আকারের বাঘাইর মাছ ধরা পড়ে। আমির হোসেন মাছটি বুধবার সকালে ডালিয়া বাজারের নিয়ে গেলে কয়েকচন ব্যবসায়ী কিনে নীলফামারী শহরের এক ব্যবসায়ীর কছে বিক্রি করেছেন বলে জেনেছি।”

পাগলপাড়া গ্রামের যুবক আমীর হোসেন (৩০) বলেন, “মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আমার বরশিতে ৯২ কেজি ওজনের ওই মাছটি ধরা পড়ে। আমরা এলাকার কয়েকজন মিলে মাছটি টেনে ডাঙ্গায় তুলি। এর আগে এলাকায় এতবড় মাছ আর ধরা পড়েনি।

“মাছটি বুধবার সকালে ডালিয়া বাজারের নিয়ে  হাজির হলে তিন ব্যবসায়ী আমার কাছ থেকে ৯১ হাজার টাকায় মাছটি কিনে নেন।”

ক্রেতা লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলার গুড্ডিমারী ইউনিয়নের নিজ গুড্ডিমারী গ্রামের মাছ ব্যবসায়ী মো. সোলায়মান আলী (৩৫) বলেন, “আমীর হোসেন বুধবার সকালে মাছটি নিয়ে ডালিয়া বাজারে আসেন। সেখান থেকে আমি ও অপর ব্যবসায়ী লালমিয়া, কেলাসুসহ তিনজনে মাছটি ৯১ হাজার টাকায় কিনে নেই। পরে নীলফামারী শহরের বড় বাজরের মাছ ব্যবসায়ী জিয়াউলের কাছে ৯৬ হাজার টাকায় বিক্রি করি।”

নীলফামারী বড় বাজারের মাছ ব্যবসায়ী জিয়াউল হক বলেন, “ডালিয়া থেকে ব্যবসায়ীরা বুধবার সকালে মাছটি নিয়ে আসেন। তিস্তা নদীতে ধরা পড়েছে সেটি নিশ্চিত হয়ে আমি কিনে ৯২টি ভাগ করে বিক্রি করেছি। প্রতিটি ভাগের দাম ধরা হয়েছে এক হাজার ৫০০ টাকা করে। অনেক বড় মাছ হওয়ায় গ্রাহক সংগ্রহের জন্য শহরে মাইকিং করেছি। মোট ১ লাখ ৩৮ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে ওই মাছ।”

নীলফামারী জেলা  মৎস্য কর্মকর্তা বরুন চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, “বাঘাইর মাছ মিঠা পানির মাছ। এটি সাধারণত পদ্মা, মেঘনা, যমুনা, তিস্তাসহ অন্যান্য নদীতে পাওয়া যায়। আমি শুনেছি গতকাল নীলফামারীর তিস্তা নদীতেও একটি মাছ ধরা পড়েছে এবং সেটি আজ নীলফামারী বড়বাজারে বিক্রি হয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক