বঙ্গমাতা সেতুতে জাহাজের ধাক্কা: মামলা দায়ের, মাস্টার-সুকানি গ্রেপ্তার

পিরোজপুর নৌ পুলিশের সদর থানায় জাহাজটির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের সার্ভেয়ার প্রজিৎ হালদার।

বাগেরহাট প্রতিনিধিপিরোজপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 28 Sept 2022, 01:03 PM
Updated : 28 Sept 2022, 01:03 PM

পিরোজপুরের বেকুটিয়ায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব সেতুর পিলারে ধাক্কা দেওয়া জাহাজের মাস্টার ও সুকানির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করেছে। 

পিরোজপুর সদর থানার ওসি আ জা মো মাসুদুজ্জামান জানান, মঙ্গলবার রাতে পিরোজপুর নৌ পুলিশের সদর থানায় জাহাজটির বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করেন সড়ক ও জনপথের [সওজ] সার্ভেয়ার প্রজিৎ হালদার। 

এই মামলায় আটক জাহাজটির মাস্টার ও সুকানি মোংলা নৌ পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন বলে তিনি জানান। 

লাইটারেজ জাহাজ এম ভি জামান-২ সোমবার রাতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা সেতুতে ধাক্কা দেয়। 

মঙ্গলবার রাতে মোংলা নৌ পুলিশ মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেল থেকে জাহাজটিকে আটক করে। 

মোংলা নৌ পুলিশের ইনচার্জ মো. লুৎফর রহমান জানান, লাইটারেজ জাহাজ এম ভি জামান-২ ঢাকা থেকে ভারত যাওয়ার পথে সোমবার রাত ১০টার দিকে পিরোজপুরের বেকুটিয়ায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব সেতুর পাঁচ নম্বর পিলারের সাথে ধাক্কা দেয়। 

“পিরোজপুর নৌ পুলিশকে বিষয়টি জানানোর পর মঙ্গলবার রাতে মোংলা নৌ পুলিশ মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেল থেকে লাইটারেজ জাহাজটিকে আটক করে। রাতেই পিরোজপুর নৌ পুলিশের সদর থানায় জাহাজটির বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন সওজের সার্ভেয়ার প্রজিৎ হালদার।” 

তিনি আরও জানান, বুধবার সকালে ওই জাহাজের মাস্টার ও সুকানিকে পিরোজপুর নৌ পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। জাহাজটি পশুর ও মোংলা নদীর মোহনার চরে মোংলা নৌ পুলিশের হেফাজতে রয়েছে।

এদিকে, অনাকাঙ্ক্ষিত এই ঘটনায় সেতুর পিলারটির সামান্য পলেস্তারা খসে পড়লেও এম ভি জামান-২ জাহাজটির ক্ষতি বেশি হয়েছে বলে দাবি এর মালিকপক্ষের। 

জাহাজের মালিকপক্ষের প্রতিনিধি মো. আসাদুজ্জামান নাহিদ ও এম ভি জামান-২ লাইটারেজের মাস্টার মো. সোহেল বলেন, জাহাজটির ‘ইলেকট্রিক সুকান’ ফেল করায় ও প্রচণ্ড স্রোতের টানে ‘কন্ট্রোল’ রাখতে না পারায় সেতুর পিলারে সামান্য ধাক্কা লাগে। এতে পিলারের তুলনায় জাহাজের ক্ষতি হয়েছে অনেক বেশি। 

তারা বলেন, ইঞ্জিনের ত্রুটিজনিত সমস্যা ও তীব্র স্রোতের কারণে এ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। পিলারে ধাক্কা লেগে জাহাজের সামনের অংশ ফেটে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফাটলটি জাহাজের ওয়াটার লেভেলের কাছাকাছি হওয়ায় ডুবে যাওয়ার আশঙ্কায় জাহাজটি রক্ষায় দ্রুত চালিয়ে মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের চরে উঠিয়ে নিরাপদে রাখা হয়। 

অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনায় সেতুর পিলারের যে সামান্য ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ কিংবা সংস্কার করে দিতে প্রস্তুত বলেও জানান তারা। 

মালিকপক্ষের প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান নাহিদ জানান, জাহাজের মাস্টার ও সুকানি বুধবার স্বেচ্ছায় পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন।  

আরও পড়ুন: 

Also Read: পিরোজপুরে বঙ্গমাতা সেতুতে মালবাহী জাহাজের ধাক্কা

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক