বরিশাল থেকে ভারতে যাচ্ছে আরও ১৬ টন ইলিশ

এ নিয়ে বরিশাল থেকে মোট ৫২ টান ইলিশ ভারতে রপ্তানি হয়েছে।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Sept 2022, 02:53 PM
Updated : 11 Sept 2022, 02:53 PM

দুর্গাপূজা উপলক্ষে বরিশাল থেকে ভারতে আরও ১৬ টন ইলিশ পাঠানো হচ্ছে।

রোববার রাতে মোট চারটি ট্রাকে এসব ইলিশ ভারতের উদ্দেশে বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড ইলিশ মোকাম থেকে রওনা হবে বলে রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান মাহিমা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী নিরব হোসেন টুটুল জানান।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বরিশাল থেকে চার জন ব্যবসায়ীকে ভারতে ইলিশ মাছ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে। তারা দুই হাজার ৪৫০ মেট্টিক টন ইলিশ রপ্তানি করবেন। রাতে ১৬ মেট্রিক টন ইলিশ যাচ্ছে। সোমবার সকালে বেনাপোল হয়ে এসব ইলিশ ভারতে যাবে।

এ নিয়ে বরিশাল থেকে মোট ৫২ টন ইলিশ ভারত গেছে উল্লেখ করে টুটুল আরও বলেন, প্রতি কেজি ইলিশের দাম ধরা হয়েছে ১০ ডলার।

বরিশাল জেলা মৎস্য কর্মকর্তা (ইলিশ) বিমল চন্দ্র মজুমদার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ভারতে ইলিশ রপ্তানি করার পরেও দেশের বাজারে চাহিদার ঘাটতি নেই। বরিশালে খুচরা বাজারসহ ঢাকার বাজারেও যথেষ্ট ইলিশ রয়েছে। বর্তমানে ইলিশ আহরণ বাড়ায় রপ্তানি হওয়ার পরেও কোনো ঘাটতি নেই।

বাজারে ইলিশের দাম ক্রয়সীমার নাগালেই রয়েছে উল্লেখ করে বিমল চন্দ্র বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির অনুপাতে ইলিশের দাম তেমন একটা বাড়েনি। বর্তমানে এক কেজি সাইজের ইলিশ প্রতিকেজি এক হাজার ৩০০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

দাম এর চেয়ে কমে গেলে জেলে ও মাছ ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

চলতি বছর দুর্গাপূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে দুই হাজার ৪৫০ টন ইলিশ ভারতে রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রপ্তানি করতে পারবে অনুমোদন পাওয়া ৪৯টি প্রতিষ্ঠান। প্রতিটি প্রতিষ্ঠান সর্বোচ্চ ৫০ টন ইলিশ রপ্তানির শর্তসাপেক্ষে অনুমোদন পেয়েছে।

অনুমতিপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ঢাকার ১৮টি, চট্টগ্রামের তিনটি, যশোরের নয়টি, নড়াইলের একটি, খুলনার তিনটি, বরিশালের চারটি, পাবনার নয়টি, নওগাঁ একটি ও সাতক্ষীরার একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

রপ্তানির অনুমোদনের চিঠিতে বলা হয়, সরকার মৎস্য আহরণ ও পরিবহনের ক্ষেত্রে কোনো রকম বিধিনিষেধ আরোপ করলে তা কার্যকর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রপ্তানির এ অনুমতির মেয়াদ শেষ হবে।

আবার সরকার প্রয়োজন মনে করলে রপ্তানির এই আদেশ যেকোনো সময় বন্ধও করতে পারবে বলে অনুমোদনের শর্তে বলা হয়েছে।

পদ্মার ইলিশ পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের কাছে প্রিয় হলেও দেশের চাহিদা বিবেচনায় বিভিন্ন সময় তা রপ্তানি বন্ধ রাখে বাংলাদেশ সরকার।

২০১২ সালের আগে ভারতে ইলিশ রপ্তানি করা হতো। ইলিশের উৎপাদন কমে যাওয়ায় ২০১২ সালের পর ইলিশ রপ্তানি বন্ধ করে দেয় সরকার।

ইলিশ রপ্তানি বন্ধ থাকলেও দুর্গোৎসবে ভারতের বাঙালিদের এই মাছের স্বাদ দিতে বিশেষ বিবেচনায় গতবছর ১১৫ প্রতিষ্ঠানকে চার হাজার ৬০০ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রপ্তানির অনুমোদন দেয় সরকার। ২০২০ সালে দুর্গাপূজা উপলক্ষে এক হাজার ৪৫০ টন এবং ২০১৯ সালে ৫০০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দিয়েছিল সরকার। এরপর ফের ইলিশ রপ্তানি বন্ধ থাকে।

১ অক্টোবর থেকে সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা শুরু হচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক