মানিকগঞ্জে পাউডার ও রাসায়নিকে হচ্ছে ‘দুধ’, একজন দণ্ডিত

রাতে ঘরে বসে শত শত লিটার ‘দুধ’ তৈরি করা হয়; পরে এই নকল দুধ ড্রামে করে বাজারে নেওয়া হয়।

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 August 2022, 06:03 PM
Updated : 2 August 2022, 06:03 PM

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় পানির সঙ্গে পাউডার ও রাসায়নিক মিশিয়ে ‘দুধ’ তৈরির অভিযোগে এক ব্যবসায়ীকে কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার উপজেলা প্রশাসন ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর হরগজ বাজারে যৌথ অভিযান পরিচালনা করে।

দণ্ডিত মো. আতাউর রহমান হরগজ ইউনিয়নের বালুচড় এলাকার প্রয়াত নোমাজ আলীর ছেলে।

সাটুরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আরা বলেন, “অভিযোগের সত্যতা পেয়ে ওই ব্যবসায়ীকে একমাসের কারাদণ্ড দিয়েছি।”

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মানিকগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান রুমেল বলেন, “গ্রামের গরুর খাঁটি দুধের চাহিদা থাকায় কিছু অসাধু ব্যবসায়ী ভেজাল দুধ তৈরি করছেন বলে অভিযোগ পেয়েছি। পরে অভিযানে এসে সত্যতা পাই।”

তিনি জানান, পাউডার, পানি ও কেমিক্যাল (রাসায়নিক) দিয়ে বাড়িতেই গরুর দুধ তৈরি করছিলেন। রাতে ঘরে বসে ক্যামিকেল দিয়ে বানানো শত শত লিটার গরুর দুধ তৈরি করে এবং এই সকল নকল দুধ অর্ধ পূর্ণ ড্রামে করেবাজারে নিয়ে আসে। সরবরাহ করা হয় ঢাকায়ও।

“উপজেলা প্রশাসন সাটুরিয়া ও জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর যৌথ অভিযান পরিচালনা করি। এ সময় নিজেদের প্রস্তুতকৃত ১৫০ লিটারের অধিক নকল দুধসহ ব্যবসায়ী আতাউর রহমানকেকে শনাক্ত করি।”

আসাদুজ্জামান রুমেল আরও বলেন, আতাউর রহমানের স্বীকারোক্তি ও উপস্থিত আলামতে নকল দুধের প্রমাণ পাওয়ায় সাটুরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আরা আতাউর রহমানকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক