ইতালিতে বাংলাদেশিকে গলা কেটে হত্যা, দায় স্বীকার আরেক বাংলাদেশির

দেশটির পারমা শহরের ফায়েল্লি সড়কে ‘লেয়নে রসসো’ অভিবাসী আশ্রয়কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

সাইফুল ইসলামইতালি থেকে
Published : 1 Nov 2023, 05:36 AM
Updated : 1 Nov 2023, 05:36 AM

ইতালিতে একটি অভিবাসী আশ্রয়কেন্দ্র থেকে এক বাংলাদেশি যুবকের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে স্থানীয় পুলিশ, হত্যার দায় স্বীকার করেছে আরেক বাংলাদেশি যুবক।

নিহত ফজলে রাব্বির (২৪) বাড়ি নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলার রামনগর গ্রামে।

সোমবার রাতে দেশটির মিলান ও বলোনিয়া শহরের মাঝামাঝি পারমা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে বলোনিয়া কুরিয়ারসহ স্থানীয় পত্রিকাগুলো সংবাদ প্রকাশ করেছে।

বলোনিয়া কুরিয়ারের প্রতিবেদনে বলা হয়, “ইতালিতে অভিবাসী আশ্রয়ক্যাম্পে ফজলে রাব্বি (২৪) নামে এক বাংলাদেশি যুবককে ঘুমের মধ্যে গলা কেটে হত্যা করেছে আরেক বাংলাদেশি।”

ঘটনার পরপরই পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করলেও নিরাপত্তার জন্য আটক ওই যুবকের নাম প্রকাশ করেনি স্থানীয় প্রশাসন। তবে প্রবাসী বাংলাদেশিরা জানান, হত্যায় অভিযুক্ত ওই যুবকের নাম হোসেন মোহাম্মদ রাব্বি (২১), বাড়ি মাদারীপুর সদর উপজেলার কুনিয়া গ্রামে।

জানা গেছে, পারমা শহরের ফায়েল্লি সড়কে ‘লেয়নে রসসো’ অভিবাসী আশ্রয়কেন্দ্রে সোমবার রাতে ফজলে রাব্বি নামে এক যুবকের রক্তাক্ত লাশ দেখতে পায় আশ্রয়কেন্দ্রের কর্মীরা। তারা জরুরি সেবা ১১৮-তে ফোন করলে চিকিৎসক এসে ফজলে রাব্বিকে মৃত ঘোষণা করে। 

এর পরপরই অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত অপর বাংলাদেশি হোসেন মোহাম্মদ রাব্বিকে আটক করে পারমা পুলিশ। এসময় ঘটনার দায় স্বীকার করলে আদালতের মাধ্যমে হত্যাকারী রাব্বিকে কারাগারে পাঠায় তারা। বর্তমানে এ ঘটনার কারণ জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। 

এ ঘটনায় আশ্রয়কেন্দ্রের পরিচালক মিকিয়েলে গুয়েররা স্থানীয় সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা পুরোপুরি হতবাক। অভিবাসীদের এমন আচরণ আমাদের জন্য দুঃখজনক।”

নিহত ফজলে রাব্বির বন্ধু প্রবাসী বাংলাদেশি আদনান হাকিম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরকে জানান, নিহত ফজলে রাব্বি তিন বছর আগে লিবিয়া দিয়ে ইতালিতে এসেছিলেন এবং স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন।

এ বিষয়ে ইতালিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মনিরুল ইসলাম বলেন, “আমরা কূটনৈতিক উপায়ে বিষয়টি জানার চেষ্টা করছি। নিহতের পরিবার লাশ নিতে চাইলে আমরা তা দেশে পাঠাতে যথাসম্ভব কাজ করব।”