পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম ২০ হাজার টাকা মজুরির দাবি

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের অষ্টম কেন্দ্রীয় সম্মেলনে এ দাবি তুলে ধরা হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Nov 2022, 09:16 AM
Updated : 18 Nov 2022, 09:16 AM

পোশাক শ্রমিকদের মজুরি ন্যূনতম ২০ হাজার টাকা নির্ধারণের দাবি জানিয়েছে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র (টিইউসি)।

শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সংগঠনটির অষ্টম কেন্দ্রীয় সম্মেলন থেকে এ দাবি জানানো হয়।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করে টিইউসির উপদেষ্টা ও সিপিবির সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান খান বলেন, “আজকে এই সম্মেলনের প্রধান লক্ষ্য হচ্ছে, বাংলাদেশের পোশাক শ্রমিকদের জন্য ন্যূনতম মজুরি ২০ হাজার টাকা করা, সেইসঙ্গে অন্যান্য ভাতা যুক্ত করে নতুন মজুরি ঘোষণা করা এবং সোয়েটারের পিসরেটসহ সকল গ্রেডের শ্রমিকের একই হারে মজুরি বৃদ্ধির দাবি জানানো।

“সম্মেলনের লক্ষ্য, সংগঠনকে আরও শক্তিশালী ও সুযোগ্য নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা করা এবং সুবিধাবাদী ও আপসকামী নেতৃত্বকে পরিহার করা।”

অনুষ্ঠানে মজুরি বৃদ্ধির পাশাপাশি শ্রমিকদের কারখানাভিত্তিক রেশন প্রদান, শ্রম আইন ও বিধিমালার সকল ‘শ্রমিকবিরোধী ধারা’ বাতিল করে গণতান্ত্রিক শ্রম আইন ও বিধিমালা প্রণয়নের দাবিও তুলে ধরা হয়।

টিইউসির সভাপতি মন্টু ঘোষ বলেন, “গত পাঁচ বছর ধরে গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি হচ্ছে না। সরকার একটার পর একটা কথা বলে পাশ কাটিয়ে যাচ্ছে। যে সময়ে এই মজুরি নির্ধারিত হয়েছিল, তার দশগুণ বেড়েছে জিনিসের দাম। শ্রমিকদের কিনে খাওয়ার মত ক্ষমতা নাই।

“এখন প্রত্যেক শ্রমিক অত্যন্ত সংকটময় অবস্থায় আছে। এই সংকটময় অবস্থায় আমরা বলেছি, ২০ হাজার টাকা মজুরি ঠিক করতে হবে। তার সঙ্গে অন্যান্য যে আইনানুগ পাওনা আছে, সেগুলো দিতে হবে।” ‍

পোশাক শ্রমিকদের জন্য রেশন চালুর দাবি জানিয়ে মন্টু বলেন, “যারা সবচেয়ে বেশি পরিশ্রম করে বিদেশ থেকে দেশের আয় করছে, তারা হচ্ছে পোশাক শ্রমিক। সেই পোশাক শ্রমিকদের বাঁচিয়ে রাখতে রেশন অত্যন্ত জরুরি। সেই রেশনের ব্যবস্থা করতে হবে।

“প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, রেশন দেবেন। কিন্তু হঠাৎ করে চুপ হয়ে গেছেন, বুঝতে পারি না কেন? এটাতে তাকে সরব হতে হবে। অত্যন্ত দ্রুত সময়ের মধ্যে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।”

টিইউসির সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার, সিপিবির সাবেক সভাপতি মোজাহিদুল ইসলাম সেলিম, টিইউসির উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ ক্বাফী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক