শাহজাহানপুর থানায় ৬ মামলা, মির্জা আব্বাসসহ আসামি কয়েকশ

শাহজাহানপুর থানার ওসি বলেন, মির্জা “আব্বাসের বাসার সামনে ঘটনাগুলো ঘটেছে। তাই মির্জা আব্বাস ছাড়া এলাকায় বিভিন্ন পদের নেতারা রয়েছেন।”

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Oct 2023, 09:30 AM
Updated : 29 Oct 2023, 09:30 AM

বিএনপির ‘মহাসমাবেশের’ দিন সহিংসতার ঘটনায় রাজধানীর শাহজাহানপুর থানায় দলটির স্থায়ী কমিটির নেতা মির্জা আব্বাসসহ কয়েকশ নেতাকর্মীকে আসামি করে ছয়টি মামলা হয়েছে।

শাহজাহানপুর থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেছেন, বিভিন্ন স্থাপনায় অগ্নিসংযোগ, জানমালের ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ আনা হয়েছে এসব মামলায়।

প্রত্যেকটি মামলায় মির্জা আব্বাসসহ ৫০ জন আসামির নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া ৭০০ থেকে ৮০০ জনকে অজ্ঞাতপরিচয় আসামি হিসেবে দেখানো হয়েছে।

বিএনপির আর কোনো জ্যেষ্ঠ নেতা আসামির তালিকায় রয়েছে কিনা জানতে চাইলে ওসি বলেন, মির্জা “আব্বাসের বাসার সামনে ঘটনাগুলো ঘটেছে। তাই মির্জা আব্বাস ছাড়া এলাকায় বিভিন্ন পদের নেতারা রয়েছেন।”

সরকারের পদত্যাগের ‘এক দফা’ দাবিতে শনিবার ঢাকার নয়া পল্টনে মহাসমাবেশ করে বিএনপি। সমাবেশ চলাকালে কাছেই কাকরাইল মোড়ে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় দলটির কর্মীরা।

পরে তা ছড়িয়ে পড়ে আশপাশের এলাকায়। শান্তিনগর, নয়াপল্টন, বিজয়নগর, ফকিরাপুল, আরামবাগ এবং দৈনিক বাংলা মোড় এলাকা রণক্ষেত্রে রূপ নেয়।

সংঘর্ষের মধ্যে পুলিশ বক্সে আগুন দেওয়া হয়। পুলিশ হাসপাতালে ঢুকে আগুন দেওয়া হয় অ্যাম্বুলেন্সে, ভাঙচুর অগ্নিসংযোগ করা হয় আরো ডজনখানেক যানবাহন।

দৈনিক বাংলা মোড়ে পুলিশ কনস্টেবল আমিরুল ইসলাম পারভেজকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সংঘাতে প্রাণ যায় যুবদলের মুগদা থানার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নেতা শামীম মোল্লার।

এছাড়া বিএনপি নেতাকর্মী, পুলিশ, সাংবাদিকসহ আহত হন অনেকেই। পুলিশ জানিয়েছে, তাদের অন্তত ৪১ জন সদস্য আহত হয়েছেন। বিএনপির দাবি, পুলিশের হামলায় সহস্রাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

সংঘর্ষের মধ্যে বিএনপির সমাবেশ পণ্ড হয়ে যাওয়ার পর রোববার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডাকেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার হরতালের সকালে গুলশানের বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল রোববার বিএনপির হরতাল চলাকালে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “বিএনপি বর্বরোচিত ও জঘন্যতম উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। সব ঘটনার জন্যই আলাদা আলাদা মামলা হবে। পুলিশ স্বপ্রণোদিত হয়েও মামলা দেবে।”

এখন পর্যন্ত কতগুলো মামলা হয়েছে, সেই প্রশ্নে তিনি বলেন, “মামলা তো শুরু হয়েছে। মামলা অনেকেই দেবে। যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তারা মামলা দেবে। সাংবাদিকরা মামলা দেবে। পুলিশ হাসপাতাল মামলা দেবে।

“যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা মামলা দেবে। পুলিশ স্বপ্রণোদিত হয়ে যেগুলো দেওয়ার সে মামলা দেবে। মামলা শুরু হয়েছে। আমরা সুনির্দিষ্টভাবে চিহ্নিত করে তাদের নামে মামলা দেব।”