অবরোধের মধ্যে রাজধানীতে বিএনপির ঝটিকা মিছিল

ষষ্ঠ দফা অবরোধের শেষ দিন অল্প সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়েই বিক্ষোভ মিছিল বের করেন বিএনপি নেতারা।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Nov 2023, 06:21 AM
Updated : 23 Nov 2023, 06:21 AM

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল বাতিল ও সরকারের পদত্যাগ দাবিতে অবরোধের মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ঝটিকা মিছিল করেছে বিএনপি।

দলটির ষষ্ঠ দফা অবরোধের শেষ দিন বৃহস্পতিবার সকালে অল্প সংখ্যক নেতাকর্মী নিয়েই মিছিল বের করেন ‘আত্মগোপনে’ থাকা বিএনপি নেতারা।

সকাল সাড়ে ৬টায় ফকিরাপুলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এবং মতিঝিলে নটরডেম কলেজের সামনের সড়কে ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নিপুণ রায় চৌধুরী মিছিলে নেতৃত্ব দেন। এসব মিছিলে ২০-২৫ জন করে নেতাকর্মী ছিলেন। তারা তফসিল বাতিল চেয়ে সরকারের বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দেন।

সরকারের পদত্যাগের ‘এক দফা’ দাবিতে গত ২৮ অক্টোবর নয়া পল্টনে বিএনপির সমাবেশকালে সংঘর্ষের পর থেকে হরতাল-অবরোধের টানা কর্মসূচি দিয়ে আসছে দলটি। ষষ্ঠ দফায় ৪৮ ঘণ্টার এই অবরোধ শেষ হবে শুক্রবার সকাল ৬টায়।

২৮ অক্টোবরের ঘটনার পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ অনেক নেতা গ্রেপ্তার হয়েছেন।

‘এক দফা দাবিতে’ দলটির অনড় অবস্থানের মধ্যেই দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে ইসি, যাকে ‘একতরফা’ আখ্যা দিয়ে বাতিলের দাবি জানাচ্ছে বিএনপি ও সমমনারা।

সকালে ফকিরাপুলে মিছিল শেষে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী বলেন, “সরকার ও তার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে সারা দেশে বিএনপির নেতাকর্মীরা শান্তিপূর্ণভাবে অবরোধ করছে। জনগণ এই কর্মসূচিতে রাজপথে নেমে আসছে।

“প্রতিদিনই পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিচ্ছে; তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা চালাচ্ছে, নেতাকর্মীদের না পেয়ে তাদের বাবা-ভাইকে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু অবরোধ রুখতে পারছে না।”

সরকারের পদত্যাগ দাবি করে তিনি বলে, “আমাদের বক্তব্য স্পষ্ট, এসব করে এবার সরকার পার পাবে না। এসব করে অবৈধ ক্ষমতাকে আর এক্সটেশন (বৃদ্ধি) করা যাবে না, জনগণের ভোটের অধিকার আদায়ের আন্দোলনকে দমানো যাবে না।

“সরকারকে অবশ্যই পদত্যাগ করতে হবে, নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে, নির্বাচন কমিশন বাতিল করে নতুন কমিশন গঠন করতে হবে এবং তাদের অধীনে একটি অবাধ সুষ্ঠু অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হতে হবে। এর বাইরে কোনো নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না।”

রিজভীর নেতৃত্বে মিছিলে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল ইসলাম, আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুযেলসহ ছাত্র দল, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা ছিলেন।

অপরদিকে নটরডেম কলেজের সামনে সকালে নেতাকর্মীদের নিয়ে মিছিল করেন ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নিপুণ রায় চৌধুরী। ২০-২২ জনের ঝটিকা মিছিল থেকে তফসিল বাতিলের দাবিতে স্লোগান দেওয়া হয়।

এছাড়া রাজধানীর পান্থপথে স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহসভাপতি ইয়াছিন আলী ও সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল হাসান এবং মেরুল বাড্ডায় ছাত্র দলের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব, ধুপখোলার কাঠেরপুলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান আসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সুজন মোল্লার নেতৃত্বে ঝটিকা মিছিল বের করা হয়।

গত ২৮ অক্টোবরের সংঘর্ষের পর থেকে এখনও নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তালা ঝুলছে। কার্যালয়ের সামনের সড়কে পাহারা অব্যাহত রেখেছে পুলিশ।