আওয়ামী লীগের কাছে প্রতিবন্ধী নারীদের জন্য আসন দাবি

৪৮ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দলটির ফরম তুলেছেন ১ হাজার ৫৪৯ জন নারী। তাদের মধ্যে প্রতিবন্ধী নারী রয়েছেন তিন জন।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Feb 2024, 07:24 PM
Updated : 10 Feb 2024, 07:24 PM

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের অন্তত একটিতে কোনো প্রতিবন্ধী নারীকে মনোনয়ন দিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে দাবি জানানো হয়েছে। 

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয় সংসদ (সংরক্ষিত মহিলা আসন) নির্বাচন আইন সংশোধন করে প্রতিবন্ধী নারীদের জন্য কোটা বরাদ্দের দাবি করে প্রতিবন্ধী নাগরিকদের সংগঠনগুলো। 

প্রতিবন্ধী নাগরিকদের দুটি সংগঠন পিএনএসপি এবং এনসিডিডাব্লিউ যৌথভাবে ‘জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত আসনে প্রতিবন্ধী নারীর প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিতে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ’ শীর্ষক এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। 

এবার সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চাওয়া পিএনএসপি ও বি-স্ক্যানের সাধারণ সম্পাদক সালমা মাহবুব, রংপুরের মিঠাপুকুরের ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও এনসিডিডব্লিউ-র সভাপতি নাসিমা আক্তার এবং জান্নাতুল ফেরদৌস আইভি সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন। 

প্রতিবন্ধী নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন জোরদার করতে সংবাদ সম্মেলনে তারা রাজনৈতিক দলগুলোর বিভিন্ন স্তরে প্রতিবন্ধী নারীর সম্পৃক্ততা বাড়ানোর দাবি জানান।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদে নারীদের জন্য সংরক্ষিত ৫০টি আসনের মধ্যে আনুপাতিক হিসাবে ৪৮টি পাবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বাকি ২টি আসন পাবে জাতীয় পার্টি।

৪৮ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে দলটির ফরম তুলেছেন ১ হাজার ৫৪৯ জন নারী। তাদের মধ্যে প্রতিবন্ধী নারী রয়েছেন তিন জন।

এসব আসনে কারা মনোনয়ন পাবেন, বুধবার আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভায় তা চূড়ান্ত হবে। 

২০২২ সালে রংপুরের পায়রাবন্দ ইউনিয়নে সংরক্ষিত নারী সদস্য হিসেবে নির্বাচিত নাসিমা দ্বাদশ জাতীয় সংসদে প্রতিবন্ধীদের প্রতিনিধিত্ব করতে চান। সেজন্য সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন তিনি।

প্রতিবন্ধী নারীদের জাতীয় পরিষদের এই সভাপতি দেশের আইনসভায় প্রতিবন্ধী মানুষদের কথা বলতে চান, তাদের জন্য আরও বড় পরিসরে কাজ করতে চান।

প্রতিবন্ধী নারীদের জাতীয় পরিষদের সভাপতি নাসিমা আক্তার মনে করেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা প্রতিবন্ধীবান্ধব, যা আশা দেখাচ্ছে তাকে।

নারী অধিকার কর্মী, নির্মাতা ও লেখক জান্নাতুল ফেরদৌস আইভি মনে করেন, সংরক্ষিত আসনে প্রতিবন্ধী নারীদের জন্য ‘কোটা’ রাখলে তা তাদের অধিকার বুঝে নেওয়ার পথ তৈরি করবে।

আগুনে পোড়ার কারণে প্রতিবন্ধিতার শিকার আইভি বিবিসির ২০২৩ সালে বিশ্বের ১০০ জন অনুপ্রেরণাদায়ী ও প্রভাবশালী নারীর তালিকায় জায়গা পান।

প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করা এই নারী বলছেন, প্রতিবন্ধী নারীদের অসুবিধাগুলো পুরুষরা বুঝতে পারেন না, অন্য নারীদের পক্ষেও বোঝা সম্ভব না। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার নিশ্চিতে সংসদে গিয়ে নীতিমালা পুনর্বিন্যাসসহ সংশ্লিষ্ট সব জায়গায় তিনি কাজ করতে চান।

আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী সালমা মাহবুব নয় মাস বয়সে ধরে ধরে হাঁটতে শিখেছিলেন, ঠিক তখনই পোলিও আক্রান্ত হয়ে আর হাঁটা হয়নি তার। হুইল চেয়ারের মাধ্যমে চলাফেরা করা এই নারী ৫৬ বছর বয়সে এসে সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য হতে চান।

অবশ্য ক্ষমতাসীন দলটির সবুজ সংকেত নিয়ে সংসদে যেতে পারবেন কিনা, তা নিয়ে আপাতত ভাবছেন না সালমা। তিনি চান, আইনসভায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রতিনিধিত্বের বিষয়টি মানুষের নজরে থাকুক এবং জনপ্রতিনিধি হতে আরও প্রতিবন্ধী নারী এগিয়ে আসুক।

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে কাজ করা সংগঠন বাংলাদেশ সোসাইটি ফর দ্য চেঞ্জ অ্যান্ড অ্যাডভোকেসি নেক্সাসের (বি-স্ক্যান) প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক সালমা মাহবুবের পর্যবেক্ষণ, সংসদে অনেক বিষয়ে আলোচনা হলেও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা এর বাইরেই থেকে যাচ্ছেন। যা তাদের অধিকার বঞ্চিত করছে।

নারীদের জন্য সংরক্ষিত আসনে প্রতিবন্ধীদের অন্তর্ভুক্ত করতে কেন বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হবে না, সে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

২০১৪ সাল থেকে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সংগঠনগুলোর জাতীয় নেটওয়ার্ক প্রতিবন্ধী নাগরিক সংগঠনের পরিষদের (পিএনএসপি) সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন সালমা।

তিনি মনে করেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা বিনোদন, শিক্ষা, চাকরি, স্বাভাবিক জীবনযাপন- সবকিছু থেকেই বঞ্চিত হচ্ছেন প্রবেশগম্যতা না থাকার কারণে।

সাঁতারকুল প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক উজ্জ্বলা বণিকের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন ডিজেবেল্ড চাইল্ড ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক নাসরিন জাহান। 

পুরনো খবর-

Also Read: ‘কথা বলার কেউ নেই’, সংসদে প্রতিনিধিত্ব চান প্রতিবন্ধী নারীরা