পেটের মেদ কমাতে যেসব সবজি কার্যকর

গাঢ় ও উজ্জ্বল রংয়ের সবজি পেট সমতল রাখতে সহায়তা করে

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Jan 2024, 10:32 AM
Updated : 13 Jan 2024, 10:32 AM

বংশগতি, জীবনধারা, অস্বাস্থ্যকর খাবার, অ্যালকোহল গ্রহণ ইত্যাদি পেটের মেদ বাড়ার জন্য দায়ী।

হার্ভার্ড হেল্থ’য়ের তথ্যানুসারে- ব্যায়াম করা, তামাক গ্রহণ বাদ দেওয়া এবং সুষম খাবার খাওয়া পেটের মেদ কমাতে সহায়তা করে।

আর সুষম খাবারের তালিকায় সবজি চলেই আসে। তবে কিছু সবজি থাকা পুষ্টি উপাদান পেট সমতল রাখতে পারে।

ব্রকলি

ব্রকলি একটি পুষ্টিকর সবজি। গাঢ় সবুজ রংয়ের এই সবজি ক্ষুধা নিবারণের পাশাপাশি পেটের মেদ কমাতে ভূমিকা রাখে।

মার্কিন পুষ্টিবিদ ট্রিস্ট বেস্ট ইটদিস নটদ্যাট ডটকম’য়ে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলেন, “এই ক্রুসিফেরাস সবজি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ যা দেহের প্রদাহ কমায়।”

তিনি আরও বলেন, “এর প্রাথমিক যৌগ হল সালফোরাফেন, যা দেহে সাইটোকিন্স এবং এনএফ-কেবি কমাতে সহায়তা করে। এই উপকরণগুলো প্রদাহ বাড়ায়। প্রদাহ কমানোর মধ্য দিয়ে শরীরের ওজন হ্রাস পায় এবং সার্বিকভাবে সচল হয়।”

‘জার্নাল অফ দ্য অ্যাকাডেমি অফ নিউট্রিশন অ্যান্ড ডায়েটিক্স’য়ে প্রকাশিত ক্যালিফোর্নিয়ার’র ‘কেক স্কুল অফ মেডিসিন’ পরিচালিত গবেষণার ফলাফলে জানানো হয়, ব্রকলি পেটের মেদের জন্য উপকারী। নিয়মিত গাঢ় সবজি খাওয়া (ব্রকলি, কেইল, পালং শাক) অতিরিক্ত ওজনের ল্যাটিনো তরুণ অংশগ্রহণকারীদের পেটের মেদ কমাতে সহায়তা করেছে।”

গাজর ও ক্যাপ্সিকামের মতো উজ্জ্বল হলুদ ও কমলা রংয়ের সবজি গ্রহণেও একই উপকার পাওয়া যায়।

গাজর

একই গবেষণায় দেখা গেছে, অধিকাংশ অংশগ্রহণকারীরা পেটের মেদ কমাতে সহায়ক সবজি হিসেবে গাজর ও ব্রকলিকে নিয়মিত গ্রহণ করেছিলেন।

গাজরে আছে লুটেইন। গবেষণায় দেখা গেছে যে, এটা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ এবং পেটের মেদ কমানোর কোষের ওপর ভূমিকা রাখে।

বেস্ট বলেন, “কাঁচা গাজর চিবিয়ে খাওয়া বিপাক বাড়াতে সহায়তা করে।”

“এই সবজি পেটের মেদ কমাতে চমৎকার কাজ করে এবং দেহের বিপাক বাড়ায়”- বলেন তিনি।

খাবারের থার্মোজেনিক বা টিইএফ প্রভাব হল ক্যালরির হার, যা হজম হওয়ার পর শরীরে জ্বালানি হিসেবে কাজ করে। গাজরের শক্ত গঠন উচ্চ টিইএফ সমৃদ্ধ, তাই এগুলো খাওয়া আরও বেশি ক্যালরি পোড়াতে ভূমিকা রাখে।

লেটুস

লেটুস উচ্চ লুটেইন সমৃদ্ধ। এটা পেটের মেদ কমাতে উপকারী।

এই যৌগ ক্যারোটিনয়েড নামক যৌগগুলোর একটি বৃহত্তর গোষ্ঠির অংশ। যার মাঝে রয়েছে লুটেইন, লাইকোপিন এবং জিয়াক্সান্থিন। এই সবকিছুতেই রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এর যৌগ। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকায় অনেক গবেষণায় দেখা গেছে, এগুলো চর্বি কমাতে উপকারী।

‘নিউট্রিয়েন্টস’ সাময়িকীতে প্রকাশিত জাপানের ‘কিয়োটো পার্ফেক্টচুরাল ইউনিভার্সিটি অফ মেডিসন’ পরিচালিত জাপানি পুরুষদের ওপর করা গবেষণায় দেখা গেছে, ক্যারোটিন সমৃদ্ধ সবজি খাওয়া পেটের জমাট বাধা মেদ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এর মধ্যে লেটুস অন্যতম।

বিট

এক ধরনের কন্দ ধরনের সবজি যা পুষ্টিতে ভরপুর। পেটের মেদ কমাতে ও ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে বিট খাওয়া উপকারী।

এটা উচ্চ আঁশ সমৃদ্ধ। প্রতি এক কাপ বিটে প্রায় ৩.৮ গ্রাম আঁশ পাওয়া যায়। খাবারে অথবা নাস্তায় পর্যাপ্ত আঁশ খাওয়া পেটের ফোলাভাব কমায়, ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণ করে এবং পেট ভরা অনুভব করায়।

আঁশ অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমকে সুস্থ রাখে, যা স্বাস্থ্যকর ওজন রক্ষায় প্রয়োজনীয়- জানান ট্রিস্টা বেস্ট।

ওজন কমানোতে আঁশ কার্যকর। পেটের মেদ কমাতেও এটা খুব ভালো কাজ করে। ‘ক্লিনিকাল এন্ড্রোক্রিনোলজি অ্যান্ড মেটাবলিজম’ জার্নালে প্রকাশিত গবেষণার ফলাফলে বলা হয়, আঁশসমৃদ্ধ খাবার খাওয়া পেটের মেদ কমাতে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

ক্যাপ্সিকাম

লুটেইন সমৃদ্ধ সবজির মধ্যে রয়েছে কমলা ও হলুদ রংয়ের ক্যাপ্সিকাম। এর উজ্জ্বল রং, মজাদার স্বাদ সবজি হিসেবে খাওয়া পেটের মেদ কমাতে সহায়তা করে।

‘ব্রিটিশ জার্নাল অব নিউট্রিশন’য়ে প্রকাশিত গবেষণায় উল্লেখ করা হয়- কম ক্যালরি বহুল খাবার, লুটেইনের সম্পূরক অংশগ্রহণকারীদের ওপর ইতিবাচক ভূমিকায় রেখেছিল। যারা পরিপূরক হিসেবে লুটেইন গ্রহণ করেছিল তাদের কোমরের মাপ, পেটের মেদ,‌ দেহের ওজন, দেহের চর্বি ও এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস পেয়েছিল।

কেইল

এটা এক ধরনের পাতাবহুল সবুজ সবজি যা পুষ্টিতে ভরপুর। এতে আছে ভিটামিন এ, কে, সি এবং বি৬। এছাড়াও ম্যাগনেসিয়াম, কপার এবং পটাসিয়ামের ভালো উৎস। আরও আছে আঁশ ও প্রোটিন। প্রতি ১০০ গ্রামে প্রায় ৪৩ ক্যালোরি পাওয়া যায়।

গবেষণায় বলা হয়েছিল, গাঢ় সবুজ শাকসবজি পেট ফোলাভাব কমায়। খাবার তালিকায় এমন সবজি যোগ করা উপকারী।

পালংশাক

সবুজ পালংশাক পুষ্টিতে ভরপুর। এটা সালাদ, অল্প ভেজে অথবা যে কোনো প্রোটিনের স্মুদিতে ব্যবহার করা যায়। পুষ্টিবিদদের মতে খাবার তালিকায় পালংশাক যোগ করা পেটের মেদ কমাতে সহায়ক।

‘গো ওয়েলনেস’ বইয়ের লেখক ও অ্যালাবামা নিবাসী পুষ্টিবিদ কোর্টনি ডি’অ্যাঞ্জেলো বলেন, “পাতাবহুল গাঢ় সবজি কেবল পুষ্টিকর নয় বরং পেটের মেদ কমাতেও কার্যকর।”

পালংশাকে আছে আঁশ, যা হজমে সহায়তা করে, অন্ত্র ভালো রাখে। উচ্চ মাত্রায় থাকা ভিটামিন কে দেহের ওজন কমাতে ও জমে থাকা মেদ ঝরায়।

লাল ক্যাপ্সিকাম

“ক্যাপ্সিকাম ওজন কমানোর ক্ষেত্রে আদর্শ সবজি”, বলেন ট্রিস্টা বেস্ট।

“এতে ক্যালরির পরিমাণ কম এবং পুষ্টির মাত্রা বেশি। তাই খাবারের সাথে এই ধরনের মরিচ খাওয়া দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা রাখে এবং অধিভোজনের ঝুঁকি কমায়।”

লাল ক্যাপ্সিকামে রয়েছে উচ্চমাত্রার কেরাটিনয়েডস যা লাইকোপিন নামে পরিচিত। আর ক্যারোটিনয়েডস সমৃদ্ধ সবজি পেটের মেদ কমাতে সহায়তা করে।

আরও পড়ুন

Also Read: প্রতিদিন যে পরিমাণ ফল ও সবজি খাওয়া দরকার

Also Read: রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সবজি

Also Read: যেসব ফল ও সবজি টেকে বেশি দিন