চট্টগ্রামে চুরি হওয়া শিশু উদ্ধার কেরাণীগঞ্জে, গ্রেপ্তার ৩

পুলিশ বলছে, মায়ের কাছ থেকে চুরি করে শিশুটিকে ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিল।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2022, 11:49 AM
Updated : 1 Dec 2022, 11:49 AM

চট্টগ্রাম থেকে চুরি করা ১১ মাস বয়সী এক শিশুকে ঢাকার কেরাণীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে ওই শিশুকে উদ্ধারের পাশাপাশি ‘হোতাসহ’ তিন জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন- কাউসার হোসেন বাবু (২৮), গোলাম হোসেন (৩২) ও লাকি আক্তার (২৮)। তাদের মধ্যে কাউসার শিশুটিকে চুরি করেছিল বলে পুলিশের ভাষ্য।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (পাহাড়তলী জোন) এ কে এম মহিউদ্দিন সেলিম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, গত ২২ নভেম্বর শিশুটিকে তার মায়ের কাছ থেকে ‘কৌশলে’ নিয়ে সটকে পড়েছিলেন কাউসার। পরে শিশুটিকে তিনি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় নিয়ে যান।

“সেখানে কয়েকদিন রেখে তাকে কেরাণীগঞ্জে গোলাম হোসেন-লাকী দম্পতির কাছে ২০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেন। এক হাজার টাকা অগ্রিম গ্রহণ করে বাকি টাকা চুক্তি সম্পাদনের পর নেওয়ার কথা ছিল।”

সহকারী কমিশনার মহিউদ্দিন সেলিম জানান, বুধবার শিশুটির স্বজনরা পাহাড়তলী থানায় সন্তান চুরির অভিযোগ করেন। এরপর থানা পুলিশের একটি দল ফতুল্লায় অভিযান চালিয়ে কাউসারকে গ্রেপ্তার করে।

তার দেওয়া তথ্যে কেরাণীগঞ্জ থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে অপর দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান সেলিম।

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, স্বামীর সাথে রাগ করে শিশুটির মা ফাতেমা খাতুন গত ২০ নভেম্বর চাকরির খোঁজে যশোর থেকে চট্টগ্রামে আসেন। চট্টগ্রামে পরিচিত কেউ না থাকায় তিনি পাহাড়তলী থানার অলঙ্কার মোড়ে অবস্থান করার সময় কাউসারের কাছে চাকরির কথা বলেন।

কাউসার নিজের ফোন নম্বর ফাতেমাকে দিয়ে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যায়। ২২ নভেম্বর অলঙ্কার মোড়ে শিশুটিকে কোলে নিয়ে ঘোরানোর কথা বলে কাউসার একপর্যায়ে সটকে পড়েন।

বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করেও কাউসার ফিরে না আসায় ফাতেমা এক ব্যক্তির মাধ্যমে তাকে (কাউসার) ফোন করেন। ফোনে কাউসার দ্রত আসার কথা বলে মোবাইল ফোনটি বন্ধ করে দেন।

সেলিম জানান, ওই দিন ফাতেমা পুলিশকে না জানিয়ে পুনরায় যশোর চলে যান। বুধবার তার বোন, বোন জামাইসহ কয়েকজন স্বজনকে নিয়ে চট্টগ্রামে এসে পাহাড়তলী থানায় অভিযোগ করেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক