মিতু হত্যা মামলায় সাক্ষ্য দিলেন আরও চার জন

এ নিয়ে মামলায় এখন পর্যন্ত ৩৬ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হল। এই মামলায় মোট সাক্ষী ৯৭ জন।

চট্টগ্রাম ব্যুরোবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Jan 2024, 02:57 PM
Updated : 16 Jan 2024, 02:57 PM

চট্টগ্রামে মাহমুদা আক্তার মিতু হত্যা মামলায় আরো চার জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

মঙ্গলবার চট্টগ্রামের তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ মো. জসিম উদ্দিনের আদালতে সাক্ষ্য দেন এএসআই শসংকর বড়ুয়া, এসআই আরিফ হোসেন, আসামি কামরুল ইসলাম শিকদার মুছার ভাড়াবাসার মালিক আনিসুজ্জামান ও জব্দ তালিকার সাক্ষী এসআই মোস্তাক আহম্মেদ।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী নেছার আহম্মেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আজ চার জন সাক্ষীর জেরাও শেষ হয়েছে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।”

এ নিয়ে মামলায় এখন পর্যন্ত ৩৬ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হল। এই মামলায় মোট সাক্ষী ৯৭ জন।

২০১৬ সালের ৫ জুন সকালে চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি মোড়ে ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার সময় সে সময়কার চট্টগ্রামের পুরিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মিতুকে গুলি চালিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এসপি বাবুল ওই ঘটনার কিছুদিন আগেই চট্টগ্রাম থেকে বদলি হন। তিনি ঢাকায় কর্মস্থলে যোগ দিতে যাওয়ার পরপরই চট্টগ্রামে এ হত্যাকাণ্ড ঘটে।

সাড়ে তিন বছর তদন্ত করেও ডিবি পুলিশ কোনো কূলকিনারা করতে না পারার পর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে আদালতের নির্দেশে মামলার তদন্তভার পায় পিবিআই।

এরপর ২০২১ সালের মে মাসে পিবিআই জানায়, স্ত্রী মিতুকে হত্যা করা হয়েছিল বাবুল আক্তারের ‘পরিকল্পনায়’। আর এজন্য খুনিদের ‘লোক মারফত তিন লাখ টাকাও দিয়েছিলেন’ বাবুল।

পরে বাবুলের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়ার পর মিতুর বাবা আরেকটি মামলা করেন। তবে সেই মামলা আদালতে না টেকার পর বাবুলের মামলাটিই পুনরুজ্জীবিত হয়।

গত বছরের ১৩ সেপ্টেম্বর সেই মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পিবিআই। তাতে বাবুলসহ সাতজনকে আসামি করা হয়। এরপর গত বছরের ১০ অক্টোবর সেই অভিযোগপত্র গ্রহণ করে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম আদালত।