লড়াইয়ে এখনই হাল ছাড়ছে না নিউ জিল্যান্ড

ম্যাচ থেকে প্রায় ছিটকে গেলেও শেষ দিনে লড়াই চালিয়ে যেতে চায় কিউইরা।

ক্রীড়া প্রতিবেদকসিলেট থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2023, 02:30 PM
Updated : 1 Dec 2023, 02:30 PM

উইকেট বাকি ৩টি, করতে হবে আরও ২১৯ রান। চতুর্থ দিনে উইকেটের অবস্থা কিংবা বাকি থাকা ব্যাটসম্যানদের দিকে তাকিয়ে এই লক্ষ্য পূরণ করা প্রায় অসম্ভবই হওয়ার কথা নিউ জিল্যান্ডের। তবু আশা ছাড়ছেন না এজাজ প্যাটেল। নিউ জিল্যান্ডের বাঁহাতি স্পিনার প্রত্যয়ী কণ্ঠে বললেন, শেষ দিনে লড়াইয়ের কোনো কমতি রাখবেন না তারা। 

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শুক্রবার ১১৩ রান করতেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলেছে নিউ জিল্যান্ড। শেষ ইনিংসে ৩৩২ রানের লক্ষ্য এখন যেন তাদের কাছে দূরের বাতিঘর। প্রতিষ্ঠিত ব্যাটসম্যানদের মধ্যে এখনও টিকে আছেন কেবল ড্যারিল মিচেল। তার সঙ্গী বাকি তিনজনই বোলার।  

ম্যাচের প্রথম তিন দিন তেমন টার্ন করা উইকেট অনেকটাই বদলেছে শুক্রবার। কিউইদের দ্বিতীয় ইনিংসের শুরু থেকেই চোখে পড়ার মতো টার্ন পেয়েছেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। ভালো জায়গায় বোলিং করে পূর্ণ ফায়দাই নিয়েছেন তাইজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান মিরাজরা।  

স্বাগতিকদের স্পিন আক্রমণ সামলে চতুর্থ দিন চোয়ালবদ্ধ লড়াই করেছেন মিচেল। পাঁচ নম্বরে নেমে আড়াই ঘণ্টার বেশি সময় ব্যাটিং করে তিনি অপরাজিত আছেন ৪৪ রানে। দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে তার ওপর আস্থার কথা বলেছেন এজাজ। 

“কালকে অনেক ব্যাটিং করতে হবে আমাদের। এখনও ড্যাজলার (ড্যারেল মিচেল) টিকে আছে। সে আজ দারুণ ব্যাটিং করেছে। আমরা জানি, ব্যাট হাতেও ইশ (সোধি) কতটা সামর্থ্যবান। শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে নিজেদের ওপর গর্ব খুঁজে নেই আমরা। কালকের দিনটা ইন্টারেস্টিং হবে। আমরা মাঠে নেমে লড়াই করব, দেখব কতদূর যাওয়া যায়।”

ম্যাচ শুরুর আগে সিলেটের উইকেট নিয়ে হয়েছে নানা আলোচনা। দুই দলের জন্যই বেশ অপরিচিত ছিল এই ২২ গজ। প্রথম তিন দিন ব্যাটিংয়ের জন্য মোটামুটি সহায়ক থাকা এই উইকেট চতুর্থ দিন দেখা গেছে বেশ টার্ন। কিছু বলে হয়েছে বাড়তি বাউন্সও। 

তবে নিজেদের ব্যর্থতায় উইকেটের কোনো দায় দেখছেন না এজাজ। বরং বাংলাদেশের বোলারদের কৃতিত্বের কথাই বললেন কিউই বাঁহাতি স্পিনার।    

“এটি খারাপ উইকেট নয়। আমার মতে, ওদের বোলাররা নিয়ন্ত্রিত বোলিং করেছে, লম্বা সময় ধরে ভালো জায়গায় বল করে আমাদের চ্যালেঞ্জের সামনে ফেলেছে। উপমহাদেশে এমন স্পিনের বিপক্ষে কাজটা সবসময়ই চ্যালেঞ্জিং। আমাদের স্রেফ নিশ্চিত করতে হবে যেন এই বোলিং সামলাতে ভালো পরিকল্পনা আমাদের থাকে।”