সূর্যকুমারের ঝড়ো সেঞ্চুরি, সাউদির হ্যাটট্রিক

দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে নিউ জিল্যান্ডকে ৬৫ রান হারিয়েছে ভারত।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Nov 2022, 10:50 AM
Updated : 20 Nov 2022, 10:50 AM

আরও একবার আলো ছড়ালেন সূর্যকুমার যাদব। তাতে পুড়ে খাক হলো নিউ জিল্যান্ডের বোলিং। লকি ফার্গুসন, অ্যাডাম মিল্নদের তুলাধুনা করে বিস্ফোরক এক সেঞ্চুরি উপহার দিলেন তিনি। দুইশর কাছাকাছি সংগ্রহ গড়ে বড় জয় তুলে নিল ভারত। দলের ব্যর্থতার দিনে হ্যাটট্রিক করলেন অভিজ্ঞ কিউই পেসার টিম সাউদি। 

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে রোববার দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৬৫ রানে জিতেছে ভারত। ১৯১ রানের পুঁজি নিয়ে স্বাগতিকদের তারা গুঁড়িয়ে দিয়েছে ১২৬ রানে। 

তিন টি-টোয়েন্টির সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল হার্দিক পান্ডিয়ার দল। দুই দলের প্রথম ম্যাচে বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়েছিল। 

৭ ছক্কা ও ১১ চারে ৫১ বলে অপরাজিত ১১১ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা সূর্যকুমার। টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর ব্যাটসম্যানের এই সংস্করণে এটা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি। গত জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করেছিলেন ১১৭ রান। 

ভারতের হয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে একাধিক সেঞ্চুরি করা তৃতীয় ব্যাটসম্যান সূর্যকুমার। রেকর্ড চারটি শতক রোহিত শর্মার, লোকেশ রাহুলের দুটি।

ভারতের ইনিংসের শেষ ওভারে তিন বলে তিন উইকেট তুলে নেন সাউদি। তার তিন শিকার ছিলেন পান্ডিয়া, দিপক হুডা ও ওয়াশিংটন সুন্দর। তিনজনই দেন ক্যাচ। 

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে নিউ জিল্যান্ডের হয়ে এটি চতুর্থ হ্যাটট্রিক। যার দুটিই করলেন সাউদি। ২০১০ সালে পাকিস্তানের ইউনিস খান, মোহাম্মদ হাফিজ ও উমর আকমলকে আউট করে প্রথম এই কীর্তি গড়েন তিনি। ওই ম্যাচেই আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে একমাত্র পাঁচ উইকেট নেন তিনি। 

বে ওভালে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই রিশাভ পান্তকে (১৩ বলে ৬) হারায় ভারত। সপ্তম ওভারে বৃষ্টি নামলে আধা ঘণ্টার মতো বন্ধ থাকে খেলা। পরে বিদায় নেন ১ ছক্কা ও ৫ চারে ৩৬ রান করা ইশান কিষান। 

১০ ওভার শেষে ভারতের রান ২ উইকেটে ৭৫। সূর্যকুমারের তাণ্ডবে পরের ৬০ বলে তারা করে ১১৬ রান। শেষ ৫ ওভারে আসে ৭২। 

ষষ্ঠ ওভারে উইকেটে গিয়ে নিজের মতো খেলতে থাকেন সূর্যকুমার। মুখোমুখি চতুর্থ বলে লকি ফার্গুসনকে চার মেরে পান প্রথম বাউন্ডারির দেখা। এরপর ছুটতে থাকেন তিনি। ৩২ বলে পা রাখেন ফিফটিতে। 

ফিফটির পর আরও বিধ্বংসী হয়ে ওঠেন সূর্যকুমার। একশ স্পর্শ করতে তার লাগে আর স্রেফ ১৭ বল। 

সপ্তদশ ওভারে সাউদিকে মারেন এক ছক্কা ও ২ চার। পরের ওভারে অ্যাডাম মিল্নকে ওড়ান দুই ছক্কায়। ১৯তম ওভারে ফার্গুসনের ওপর ঝড় বইয়ে দিয়ে হাঁকান এক ছক্কা ও চারটি চার। ওভার থেকে আসে ২২ রান। ওই ওভারেই ৪৯ বলে করেন কাঙ্ক্ষিত শতক।

শেষ ওভারে সাউদির ওই হ্যাটট্রিকে দুইশ করতে পারেনি ভারত। ওই ওভারে স্ট্রাইকই পাননি সূর্যকুমার। দুর্দান্ত বোলিংয়ে স্রেফ ৫ রান দেন সাউদি। 

রান তাড়ায় দ্বিতীয় বলেই থার্ডম্যান সীমানায় ধরা পড়েন ফিন অ্যালেন। ডেভন কনওয়ে ও কেন উইলিয়ামসনের ৫৬ রানের জুটিতে ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়ায় নিউ জিল্যান্ড।

কনওয়ের বিদায়ের পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে স্বাগতিকদের ব্যাটিং। গ্লেন ফিলিপস, ড্যারিল মিচেলরা দুই অঙ্কে গেলেও খেলতে পারেননি বড় ইনিংস। 

নিউ জিল্যান্ডের হয়ে ২৫ রান পার করেন কেবল উইলিয়ামসন। ২ ছক্কা ও চারটি চারে ৬১ রান করেন দলটির অধিনায়ক। 

ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন দিপক হুডা। এক ওভারেই তার শিকার তিনটি। দুটি করে প্রাপ্তি মোহাম্মদ সিরাজ ও যুজবেন্দ্র চেহেলের। 

আগামী মঙ্গলবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে নেপিয়ারে মুখোমুখি হবে দুই দল। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর: 

ভারত: ২০ ওভারে ১৯১/৬ (কিষান ৩৬, পান্ত ৬, সূর্যকুমার ১১১*, আইয়ার ১৩, পান্ডিয়া ১৩, হুডা ০, ওয়াশিংটন ০, ভুবনেশ্বর ১*; সাউদি ৪-০-৩৪-৩, মিল্ন ৪-০-৩৫-০, ফার্গুসন ৪-০-৪৯-২, নিশাম ১-০-৯-০, সোধি ৪-০-৩৫-১, স্যান্টনার ৩-০-২৭-০) 

নিউ জিল্যান্ড: ১৮.৫ ওভারে (অ্যালেন ০, কনওয়ে ২৫, উইলিয়ামসন ৬১, ফিলিপস ১২, মিচেল ১০, নিশাম ০, স্যান্টনার ২, মিল্ন ৬, সোধি ১, সাউদি ০, ফার্গুসন ১*; ভুবনেশ্বর ৩-০-১২-১, আর্শদিপ ৩-০-২৯-০, সিরাজ ৪-১-২৪-২, ওয়াশিংটন ২-০-২৪-১, চেহেল ৪-০-২৬-২, হুডা ২.৫-০-১০-৪) 

ফল: ভারত ৬৫ রানে জয়ী 

ম্যান অব দা ম্যাচ: সূর্যকুমার যাদব 

সিরিজ: ৩ ম্যাচের সিরিজে ভারত ১-০ তে এগিয়ে

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক