ধ্বংসস্তূপ থেকে লিড নেওয়ার পথ খুঁজছে নিউ জিল্যান্ড

সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ মাথায় রেখে ছোট ছোট জুটি গড়ে সামনে এগোনোর কথা বললেন নিউ জিল্যান্ডের বাঁহাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Dec 2023, 02:41 PM
Updated : 6 Dec 2023, 02:41 PM

স্পিনারদের কল্যাণে প্রথম দুই সেশনে নিয়ন্ত্রণ হাতে রাখে নিউ জিল্যান্ড। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় দিন শেষে তারাই বিপদে। কঠিন অবস্থা থেকে উত্তরণে তাই ছোট ছোট ধাপে বাকি পথ পাড়ি দেওয়ার পরিকল্পনা সফরকারীদের। 

মিরপুরে স্পিন সহায়ক উইকেটে প্রথম দিনেই পড়েছে ১৫ উইকেট। বাংলাদেশকে ১৭২ রানে গুটিয়ে দিয়েও স্বস্তিতে নেই নিউ জিল্যান্ড। আলোকস্বল্পতায় ৮.২ ওভার বাকি থাকতে খেলা বন্ধ হওয়ার আগে ১২.৪ ওভারে তাদের সংগ্রহ ৫ উইকেটে স্রেফ ৫৫ রান। বাংলাদেশের চেয়ে এখনও ১১৭ রানে পিছিয়ে টিম সাউদির দল। 

ক্রিজে এখন নিউ জিল্যান্ডের শেষ দুই স্বীকৃত ব্যাটসম্যান ড্যারিল মিচেল ও গ্লেন ফিলিপস। দলকে টেনে নেওয়ার সিংহভাগ দায়িত্ব এখন তাদেরই। শেষ বিকেলে দুজনেই ছিলেন দ্রুত রান তোলার চেষ্টায়। উইকেটে টিকে থাকা কঠিন বুঝতে পেরে হয়তো দল থেকেই দেওয়া হয়েছে এমন পরিকল্পনা। 

দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে মিচেল স্যান্টনারের কথায়ও তাই পরিষ্কার হলো। বিপর্যয় সামলে লিড নেওয়ার আশায় যত বেশি সম্ভব জুটি গড়ার দিকে জোর দিলেন বাঁহাতি স্পিনার। 

“আমরা জানি, এটি (লিড নেওয়া) বেশ চ্যালেঞ্জিং হবে। আমরা শুধু জুটি গড়ার ব্যাপারে কথা বলেছি। যে-ই ব্যাটিং করতে নামুক, হয়তো ৮০-৯০ রানের জুটি হবে না, তবে দ্রুত ৩০ রান হলেও চলবে। এসব জুটি গড়ে তাদের কাছাকাছি যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে…কোনো সন্দেহ নেই, আগামী কয়েকদিন বেশ লড়াই হবে।”

মিচেল, ফিলিপসের পর স্যান্টনার ছাড়াও নিউ জিল্যান্ড দলে ব্যাটিং করতে পারা বোলার আছেন সাউদি, কাইল জেমিসনরা। তাই আশা ছাড়ছেন না স্যান্টনার। নিজেদের পরিকল্পনায় আস্থা রেখে স্বাগতিকদের ওপর চাপ সৃষ্টির লক্ষ্য তার।

“আমার মতে, অপরপ্রান্তে যে-ই থাকুক, জুটি গড়ার চেষ্টা করতে হবে। ১০০-১২০ রানের জুটি না হোক, ৫০ রানের জুটি হলেও হবে, যা আমাদের ওদের স্কোরের (১৭২) কাছে যেতে সাহায্য করবে। যত লম্বা সময় সম্ভব লড়াইয়ের চেষ্টা করতে হবে। তারা যদি বাজে বল করে, সচরাচর তারা যা করে না, তাহলে এর সুযোগ নিতে হবে। তো সবারই নিজ নিজ পরিকল্পনা থাকবে তাদের স্পিনারদের ওপর চাপ ফিরিয়ে দেওয়ার।”