সম্মিলিত সিদ্ধান্তে বাদ মাহমুদউল্লাহ

তবে ভবিষ্যতে অভিজ্ঞ এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের জন্য টি-টোয়েন্টির দুয়ার খোলা থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচকরা। 

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Sept 2022, 01:44 PM
Updated : 14 Sept 2022, 01:44 PM

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দল ঘোষণার আগে আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন মাহমুদউল্লাহ। একদিকে তার পড়তি ফর্ম, অন্য দিকে তার লম্বা অভিজ্ঞতা এবং অতীতের পারফরম্যান্স। সব মিলিয়ে ছিল দোটানা। প্রধান নির্বাচন মিনহাজুল আবেদীন অবশ্য জানালেন, সবার মিলিত সিদ্ধান্তেই বিশ্বকাপ দলের বাইরে রাখা হয়েছে সাবেক এই অধিনায়ককে। 

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়া আসরের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেন মিনহাজুল। ইনিংসের শেষদিকে ঝড় তোলার জন্য বাংলাদেশের লম্বা সময়ের ভরসা মাহমুদউল্লাহকে দলে না রাখার ব্যাখ্যা দেন তিনি। 

“মাহমুদউল্লাহর প্রতি আমাদের সবটুকু সম্মান আছে। আমাদের জাতীয় দলের জন্য অনেক ভালো খেলা উপহার দিয়েছে সে। তবে এবার আমাদের টি-টোয়েন্টি কনসালটেন্ট একটা পরিকল্পনা আমাদের দিয়েছে এবং আগামী এক বছরের যে পরিকল্পনা নিয়ে আমরা এগোচ্ছি, এটার জন্য ভিন্ন একটা গতিপথ ঠিক করা হয়েছে। সেই পথেই আমরা গিয়েছি। টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে সবার সম্মতিক্রমে মাহমুদউল্লাহকে বাইরে রাখা হয়েছে।” 

সবশেষ ১৬ ইনিংসে নেই কোনো ফিফটি। মেটাতে পারছিলেন না তার কাছে দলের প্রত্যাশা, তুলতে পারছিলেন না ঝড়। পারফরম্যান্সে ভাটার টান অনেক দিন ধরেই। তাতে মাহমুদউল্লাহর দলে থাকা নিয়ে সংশয় ছিলই। তাহলে কি সাবেক অধিনায়ককে নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে একটু দেরিই হয়ে গেল? 

“দেরি নয়, আপনারা দেখেন, আমরা পিঠাপিঠি ম্যাচও খেলেছি। কিছু কিছু খেলোয়াড়ের লম্বা চোটও গিয়েছে। তাদের চোটের কারণে গত ৬ মাসে অনেক ভোগান্তি হয়েছে আমাদের। এই ভোগান্তির কারণেই অনেক ক্রিকেটারকে আবার ডাকা হয়েছে, দেখা হয়েছে। আমরা একটা সমস্যায় পড়েছি।” 

“এমনিতেই এই সংস্করণে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি। সেই হিসেবে এটা নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে। সবকিছু আলোচনা করে সবার সম্মতিক্রমে সব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যদিও আমরা এই সংস্করণে পিছিয়ে আছি, তবে এখন যে সামর্থ্য আছে, এশিয়া কাপ থেকে মন-মানসিকতার যে পরিবর্তন দেখছি, আশা করি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভালো কিছু করব।” 

বয়স হয়ে গেছে ৩৬। পরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আসতে এখনও দুই বছর বাকি। সেই আসরের জন্য এখন থেকেই দল গোছানোর ভাবনা থাকলে মাহমুদউল্লাহর জন্য কি এই সংস্করণে দরজা বন্ধ হয়ে গেল? 

এমন প্রশ্নের জন্য হয়তো তৈরি ছিলেন না নির্বাচকরা। মুখ চাওয়া চাওয়ি করছিলেন তারা। পরে দীর্ঘ দিন ধরে নির্বাচক কমিটিতে থাকা হাবিবুল বাশারকে এর উত্তর দিতে বললেন মিনহাজুল। 

“সময়ই বলবে। যতদিন একজন ক্রিকেটার অবসর গ্রহণ না করেন, তার সুযোগ সবসময় থাকে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক