বড়পুকুরিয়া খনির সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরুর নির্দেশ

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনিতে ৮৬টি পদে নিয়োগের জন্য ২০০৯ সালে বিজ্ঞপ্তি হওয়ার পর নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়; পরে নিয়োগপ্রার্থীরা হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Jan 2024, 07:46 AM
Updated : 25 Jan 2024, 07:46 AM

দেড় দশক আগে থেমে যাওয়া বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির ড্রাইভার ও এমএলএসএস পদে ৮৬ জনের নিয়োগ প্রক্রিয়া ফের শুরুর নির্দেশ দিয়েছে আপিল বিভাগ।

বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি কর্তৃপক্ষের রিভিউ আবেদন খারিজ করে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারকের আপিল বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেয়।

২০০৯ সালে ওই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়। পরে নিয়োগপ্রার্থীরা হাই কোর্টে রিট আবেদন করেন।

রিটকারীদের পক্ষে বৃহস্পতিবার শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক। অপরদিকে কয়লাখনির পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট এ এম মাসুম।

শুনানি শেষে শাহ মঞ্জুরুল হক সাংবাদিকদের বলেন, ২০০৯ সালে বড় পুকুরিয়া কয়লাখনি কর্তৃপক্ষ ড্রাইভার ও এমএলএসএস পদে ৮৬ জনকে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়। এরপর যথারীতি চাকরি প্রার্থীরা আবেদন করেন। একপর্যায়ে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ।

নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধের সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে হাই কোর্টে রিট করেন নিয়োগপ্রত্যাশীরা। শুনানি নিয়ে হাই কোর্ট ২০১৬ সালে ওই ৮৬ জনের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশ দেয়।

“হাই কোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে বড়পুকুরিয়া কর্তৃপক্ষ আপিল করলে আপিল বিভাগ হাই কোর্টের আদেশ বহাল রাখে। আপিল বিভাগের এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আবেদন (রিভিউ) করে বড়পুকুরিয়া কর্তৃপক্ষ।”

সেই আবেদন খারিজ করে বৃহস্পতিবার ৮৬ জনের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করার নির্দেশ দিলেন সর্বোচ্চ আদালত।