পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শকের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে স্থিতাবস্থা

চার বছর আগে একই পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী সাড়ে সাত হাজারের বেশি নিয়োগ প্রার্থী চূড়ান্ত ফলের অপেক্ষায় আছেন।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 March 2024, 03:28 PM
Updated : 21 March 2024, 03:28 PM

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিবার কল্যাণ পরিদর্শক (এফডব্লিউভি) পদে নিয়োগে নতুন বিজ্ঞপ্তির ওপর স্থিতাবস্থার আদেশ দিয়েছে হাই কোর্ট।

বৃহস্পতিবার একটি রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

চার বছর আগে একই পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী এখনও সাড়ে সাত হাজারের বেশি নিয়োগ প্রার্থী মৌখিক পরীক্ষা দিয়ে ফলের অপেক্ষায় রয়েছেন। এ অবস্থায় ওই নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে নতুন এ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

এমন প্রেক্ষাপটে রিট আবেদনের পর নতুন বিজ্ঞপ্তিতে স্থিতাবস্থার পাশাপাশি পরিবার কল্যাণ পরিদর্শক মনোনয়ন প্রক্রিয়া বাতিল সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ হবে না, তা জানতে চেয়ে রুলও জারি করা হয়েছে।

রিট আবেদনকারীরাসহ যারা যথাযথভাবে উত্তীর্ণ হয়েছেন, তাদেরকে দিয়ে এ পদের মনোনয়ন প্রক্রিয়া কেন সম্পন্ন করা হবে না, সেটিও জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

রিটকারীর পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত দাশ গুপ্ত।

ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ‘পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকা’ পদটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, যারা ইউনিয়ন পর্যায়ে মা ও শিশুর স্বাস্থ্যসেবা দেন।

এ আইনজীবী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে অনেক পদ শূন্য থাকার পর ২০২০ সালের ১০ মার্চ পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর এ পদে ১০৮০ জনকে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। রিটকারীরা ওই পদের জন্য আবেদন করেছিলেন।

২০২৩ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি এ পদে নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা হয় এবং একই বছরের ১১ মে লিখিত ফলাফল প্রকাশ হয়। লিখিত পরীক্ষায় ৭ হাজার ৬২১ জন নিয়োগপ্রার্থী উত্তীর্ণ হন। পরে ২০২৩ সালের ২৫ মে থেকে ১৮ জুন পর্যন্ত মৌখিক পরীক্ষাও অনুষ্ঠিত হয়।

আইনজীবী ছিদ্দিক বলেন, “কিন্তু মৌখিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ না করে চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি লিখিত পরীক্ষায় অনিয়মের অভিযোগ তুলে সম্পূর্ণ মনোনয়ন প্রক্রিয়া বাতিল করে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর।“

এ বিজ্ঞপ্তিকে চ্যালেঞ্জ করে রিটকারীরা হাই কোর্টে আসেন।