ট্রেনে চেপে ২ ঘণ্টা ১০ মিনিটে ঢাকা থেকে ভাঙ্গা

ট্রেন সেতুতে ওঠার সময় উল্লাসে ফেটে পড়েন সবাই।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Feb 2024, 01:03 PM
Updated : 10 Feb 2024, 01:03 PM

পরীক্ষামূলক যাত্রায় পদ্মা সেতু পার হয়ে ঢাকা থেকে ২ ঘণ্টা ১০ মিনিটে ফরিদপুরের ভাঙ্গায় পৌঁছেছে ট্রেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়ার পর ১১ টা ২৭ মিনিটে ট্রেনটি পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে পৌঁছায়। এরপর আট মিনিটে পদ্মা সেতু পার হয়ে ভাঙ্গা জংশনে পৌঁছায় ১২ টা ১৭ মিনিটে।

সেখানে বেলুন উড়িয়ে এবং আতশবাড়ি পুড়িয়ে সফল ট্রেনযাত্রা উদযাপন করেন রেলকর্মীরা। রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনসহ বাংলাদেশ রেলওয়ে এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এই পরীক্ষামূলক যাত্রার যাত্রী হয়েছিলেন।

ট্রেন সেতুতে ওঠার সময় উল্লাসে ফেটে পড়েন সবাই। ক্যামেরা বা মোবাইলে মুহূর্তটি বন্দি করতে ব্যস্ত ছিলেন অনেকে।

এর আগে সকালে ট্রেন কমলাপুর থেকে চলতে শুরু করলে পোস্তগোলা এলাকা পর্যন্ত রেললাইনের দুপাশে মানুষ ভিড় করে। হাত তালি দিয়ে, উল্লাস জানায় তারা।

পোস্তগোলার পর ধীরে ধীরে গতি বাড়ে ট্রেনের। ট্রেনটির সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার গতিতে চলে। পথে মাওয়া, জাজিরা রেলস্টেশনে অল্প সময়ের জন্য থামানো হয় ট্রেন।

ভাঙ্গা থেকে বৃহস্পতিবারই আবার ঢাকায় ফিরবে এই ট্রেন। আগামী ১০ অক্টোবর পদ্মা সেতু হয়ে ট্রেন চলাচলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার সঙ্গে ঢাকার যোগাযোগ আরো সহজ হবে।

পুরো প্রকল্পটি যশোর পর্যন্ত। সেটি উদ্বোধন হবে ২০২৪ সালের জুনে। আর এ বছর ট্রেন চলাচল করবে ফরিদপুরের ভাঙ্গা জংশন পর্যন্ত।

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের মাধ্যমে ঢাকা থেকে যশোর পর্যন্ত প্রায় ১৭২ কিলোমিটার দীর্ঘ নতুন রেলপথ নির্মাণ করছে রেলওয়ে। এর মধ্যে ঢাকা থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত প্রায় ৮২ কিলোমিটার রেলপথ চালু হচ্ছে।

প্রকল্পের প্রতিবেদন অনুসারে, আগস্ট পর্যন্ত কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৮২ শতাংশ। এ প্রকল্পে তিন অংশে বিভক্ত হয়ে কাজ চলমান। প্রথম অংশের ঢাকা-মাওয়া অংশে অগ্রগতি ৮০.৫০ শতাংশ। দ্বিতীয় অংশ মাওয়া-ভাঙ্গার কাজের অগ্রগতি ৯৬.৫০ শতাংশ।

২০১৬ সালের ১ জানুয়ারি এ রেললাইন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শুরু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। জিটুজি পদ্ধতিতে এ প্রকল্পে অর্থায়ন করছে চীন। প্রকল্পের মেয়াদ ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত। রেল সংযোগের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৯ হাজার ২৪৭ কোটি টাকা।

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)