বিদেশে চিকিৎসা: যেভাবে আপিল করতে পারবেন খালেদা

৭৮ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Oct 2023, 12:54 PM
Updated : 21 Oct 2023, 12:54 PM

চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে চাইলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আপিল করতে পারেন; তবে তার আগে তাকে আদালতে আত্মসমর্পণ করে জেলে যেতে হবে।

সোমবার সুপ্রিম কোর্টে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা বলেছেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মেহেদী হাছান চৌধুরী।

তিনি বলেন, “ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারার আলোকে করা আবেদনে আগেই খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত করা হয়েছিল। এখন অন্য কোনো আদেশ দেওয়ার আর কোনো স্কোপ নেই।

“এখন তাকে আত্মসমর্পণ করে কারাগারে যেতে হবে এবং জেলখানায় যাওয়ার পরে তিনি জামিন আবেদন এবং বিদেশে চিকিৎসার জন্য আপিল বিভাগে আবেদন করতে পারেন। কারণ সাজার বিরুদ্ধে তার আপিল পেন্ডিং রয়েছে।”

খালেদা জিয়া দোষ স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছেও আবেদন করতে পারেন বলে জানান এই অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল।

বিএনপি চেয়ারপারসনকে মুক্তি দিয়ে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর অনুমতি চেয়ে যে আবেদন তার পরিবার করেছিল, রোববার তা নাকচ করেছে আইন মন্ত্রণালয়।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক রোববার বলেছেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারার ক্ষমতাবলে সরকার নির্বাহী আদেশের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিত রেখে তাকে সাময়িক মুক্তি দিয়েছিল। সেটা চলমান থাকা অবস্থায় তাকে বিদেশে যাওয়ার অনুমতি দেওয়ার সুযোগ নেই।

“তাকে এখন ৪০১ ধারায় যে মুক্তি দেওয়া হয়েছে সাজা স্থগিত রেখে, সেটা বাতিল হলে আবার বিবেচনা করার সুযোগ থাকবে।”

দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে নিজের বাসায় থেকে চিকিৎসা নেওয়া এবং দেশের বাইরে না যাওয়ার শর্তে ২০২০ সালের মার্চে সরকারের নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি দেওয়া হয়।

৭৮ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ আর্থ্রাইটিস, ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, কিডনি, লিভার জটিলতায় ভুগছেন। গত ৯ অগাস্ট থেকে তিনি বসুন্ধরার এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের বরাতে বিএনপি নেতারা বলে আসছেন, তাদের নেত্রীর অবস্থা ‘সঙ্কটজনক’। লিভার প্রতিস্থাপনের জন্য তাকে দ্রুত বিদেশে পাঠানো ‘জরুরি’।

সর্বশেষ গত ১২ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ আরো ৬ মাস বৃদ্ধি করে সরকার। তখনও তাকে বিদেশে পাঠানোর অনুমতি চেয়েছিল তার পরিবার। কিন্তু সরকার সে আবেদনে সাড়া দেয়নি।

তার দুই সপ্তাহের মাথায় গত ২৫ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নতুন করে আবেদন করেন। বিএনপি চেয়ারপারসনকে স্থায়ীভাবে মুক্তি দিয়ে চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে পাঠানোর অনুমতি চাওয়া হয় সেখানে। এরপর নিয়ম অনুযায়ী গত বুধবার আবেদনটি আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয় মতামতের জন্য।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের সাজা হয়। সেদিন থেকে কারাবন্দি তিনি। পরে হাই কোর্টে এ সাজা বেড়ে ১০ বছর হয়। এরপর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার আরও সাত বছরের সাজা হয়।

(প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছিল ২ অক্টোবর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)