হারাগাছে ‘পুলিশি নির্যাতনে’ মৃত্যু: তদন্তে কমিটি করল হাই কোর্ট

রংপুরের হারাগাছে ‘পুলিশি নির্যাতনে’ তাজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগ তদন্তে এবার কমিটি করে দিয়েছে হাই কোর্ট।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2021, 03:38 PM
Updated : 8 Dec 2021, 03:38 PM

এ ঘটনায় পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদন ও ভিসেরা প্রতিবেদন দেখে বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাই কোর্ট বেঞ্চ বুধবার এ আদেশ দেয়।

জেলা ও দায়রা জজের নেতৃত্বে তিন সদস্যের এ কমিটিতে থাকবেন একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার।

এ কমিটিকে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

রংপুরের হারাগাছ পৌরসভার বানিয়াপাড়ার মৃত শওকত আলীর ছেলে তাজুল ইসলামকে গত ১ নভেম্বর মাদক সেবনের অভিযোগে আটক করে পুলিশ।

সেদিন সন্ধ্যায় তার মৃত্যুর খবরে থানায় হামলা করে উত্তেজিত জনতা। পরে কাঁদুনে গ্যাস ছুড়ে ও লাঠিপেটা করে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বুধবার আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল (ডিএজি) অমিত দাশ গুপ্ত। আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জ্যোতির্ময় বড়ুয়া।

অমিত দাশ গুপ্ত বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এ ঘটনায় এর আগে পুলিশের একটি তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছিল। যেহেতু অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে তাই নতুন করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দিয়েছেন আদালত।”

‘পুলিশি নির্যাতনে’ তাজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির মৃত্যুর অভিযোগ গত ২ নভেম্বর আদালতের নজরে আনলে প্রথমে আদালত রাষ্ট্রপক্ষকে খোঁজ নিয়ে জানাতে বলে।

সে অনুযায়ী ডিএজি অমিত রংপুরের পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তার জবাবে রংপুরের কমিশনারের পক্ষে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ একটি প্রতিবেদন পাঠায়, যা গত ৩ নভেম্বর আদালতে উপস্থাপন করেন এই আইন কর্মকর্তা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তাজুল ইসলামের মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের একটি কমিটি করা হয়েছে। কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এরপর গত ২৪ নভেম্বর আদালত ভুক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয় জনগণকে যাতে হয়রানি না করা হয়, সে নির্দেশ দেয়।

সেদিন ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে রাষ্ট্রপক্ষ বলে, তাজুল ইসলামের শরীরে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। সেদিন রাষ্ট্রপক্ষ ভিসেরা প্রতিবেদন দাখিল করে।

সে ধারাবাহিকতায় বুধবার আদেশ দিল উচ্চ আদালত।

আরও পড়ুন

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক