‘খুনের আরও পরিকল্পনা’ ছিল সাগরের, তদন্ত করছে র‌্যাব

এক জনপ্রতিনিধিকেও ‘হত্যার পরিকল্পনার’ বিষয়ে র‌্যাবকে তথ্য দিয়েছেন আশুলিয়ায় একই পরিবারের তিনজনকে খুনের আসামি সাগর।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Dec 2023, 10:18 AM
Updated : 1 Dec 2023, 10:18 AM

দুই মাস আগে সাভারের আশুলিয়ায় একই পরিবারের তিনজনকে গলা কেটে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার সাগর আলী একজন ‘জনপ্রতিনিধিকেও হত্যার পরিকল্পনা’ করছিলেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে বলে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানিয়েছেন।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার একটি ভবনের ফ্ল্যাট থেকে সন্তানসহ দম্পতির গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

ঘটনার তদন্তে নেমে ২ অক্টোবর গাজীপুরের শফিপুর এলাকা থেকে সাগর ও তার স্ত্রী ঈশিতা বেগম দম্পতিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-৪ একটি দল।

পরে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানায়, ভেষজ চিকিৎসার মিথ্যা আশ্বাসে আশুলিয়ার পোশাককর্মী দম্পতি মোক্তার হোসেন ওরফে বাবুল ও শাহিদা বেগমের বাসায় গিয়েছিলেন ওই দম্পতি। উদ্দেশ্য ছিল, তাদেরকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করে মালামাল লুট করবেন। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত টাকা না পেয়ে মোক্তার-শাহিদার সঙ্গে তাদের ১২ বছর বয়সী ছেলেকেও গলা কেটে হত্যা করেন।

শুক্রবার কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে অন্য একটি মামলায় গ্রেপ্তার এক আসামির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন র‌্যাব কর্মকর্তা খন্দকার মঈন; সেখানেই আশুলিয়ার তিন খুনের ঘটনায় গ্রেপ্তার সাগরকে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে জানতে চান এক সাংবাদিক।

টাঙ্গাইলের এক জনপ্রতিনিধিকে ‘হত্যার জন্য’ সাগর আলীকে কারাগার থেকে জামিনে বের করেন সেখানকারই এক রাজনৈতিক নেতা- জিজ্ঞাসাবাদে সাগর এমন কোনো তথ্য দিয়েছেন কিনা, জানতে চাওয়া হয় র‌্যাবের কাছে।

জবাবে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক বলেন, “প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাগর বেশ কিছু তথ্য দিয়েছেন। কারাগারে থাকা অবস্থায় তার এলাকার একজন বিশিষ্ট ব্যক্তি জনপ্রতিনিধি তাকে জামিন পেতে সহযোগিতা করেছেন বলে জানিয়েছে। সেই জনপ্রতিনিধি সাগরের জামিন এবং টাকা দিয়ে সহায়তা করেছে আরেকজন প্রতিনিধিকে হত্যার জন্য।

“তবে এসবই সাগরের দেওয়া তথ্য। বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ নিয়ে সংবাদ হয়েছে, সেসবও সেই গণমাধ্যমের নিজস্ব অনুসন্ধান। তবে সাগর আমাদেরকে যে তথ্যগুলো দিয়েছেন, এগুলো সঠিক কিনা যাচাই বাছাই করছি।”

এ র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, “মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত শেষে আরও বিস্তারিত বলতে পারবেন। আমরা সাগরের কাছ থেকে যার নাম পেয়েছি, এ বিষয়ে তদন্ত করছি।”

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, “আমরা সাগর আলীকে গ্রেপ্তার করেছিলাম একই পরিবারের তিনজনকে হত্যার ঘটনায়। এর আগে ২০১৮ সালেও একই পরিবারের চারজনকে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার করেছিল র‌্যাব। সাগর আলী জামিনে বের হয়ে এসে আবার একই পরিবারের তিনজনকে হত্যা করেন (আশুলিয়ায়)।”

র‌্যাব এর আগে জানায়, টাঙ্গাইলের মধুপুরে ২০০ টাকার জন্য একই পরিবারের চারজনকে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে একই কায়দায় গলা কেটে হত্যার ঘটনায় জড়িত ছিলেন সাগর। ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হয়ে সাড়ে তিন বছর কারাভোগের পর এ বছরের জুনে জামিনে বের হন তিনি।

আরও পড়ুন-

Also Read: আশুলিয়ার তিন খুনের ঘটনায় দম্পতি গ্রেপ্তার