ইফতিখারের একক চিত্র প্রদর্শনী শুরু

‘সার্চিং ফর স্পেস’ শিরোনামের এ প্রদর্শনীতে শিল্পী অতীত আর বর্তমানের মধ্যকার ‘কথোপকথন’কে তুলে আনতে চেয়েছেন যেন তার শিল্পকর্মে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 23 Sept 2022, 05:26 PM
Updated : 23 Sept 2022, 05:26 PM

কানাডায় বসবাসরত শিল্পী ইফতিখার উদ্দীন আহমেদের একক চিত্র প্রদর্শনী শুরু হয়েছে ঢাকায় আলিয়ঁস ফ্রঁসেজের গ্যালারিতে।

শুক্রবার ‘সার্চিং ফর স্পেস’ শিরোনামে উদ্বোধন হওয়া এ প্রদর্শনীতে শিল্পী চক্রাকার বৃত্ত, ধসে পড়া স্তম্ভ, ঘড়ি এবং চাবির আপাত-বিমূর্ত কম্পোজিশনে সময়কে উপস্থাপন করেছেন। অতীত আর বর্তমানের মধ্যকার ‘কথোপকথন’কে তুলে আনতে চেয়েছেন যেন তার শিল্পকর্মে।

প্রদর্শনীটি ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিকাল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। সাপ্তাহিক ছুটির কারণে রোববার বন্ধ থাকবে।

নিজের শিল্পকর্মের বিষয়ে ইফতিখার বলেন, "আমার প্রিয় বিষয় হল স্পেস, অন্যটি সময়। বারবার আমার পেইন্টিং এ যে মোটিফগুলো ফিরে ফিরে আসে সেগুলো হলো সিঁড়ি, চাকা, বৃত্ত, প্রাচীন মিসরীয় প্রতীক এবং পিরামিডের নকশা, এমন কিছু যা তুলে ধরে স্পেস, ইতিহাস এবং সময়ের প্রতীকী উপস্থাপন। আমার পারিপার্শ্বের সব ধরনের পরিবর্তন আমি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করে থাকি।"

ব্যক্তিগত কষ্ট, যন্ত্রণা ও হতাশাকে চিত্রের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, মাঝে মাঝে আমার রেখাগুলো বিচ্ছিন্ন কিংবা আঁকিবুকি বলে মনে হয়। বিভিন্ন পরিচিত অপরিচিত ফর্ম পৃষ্ঠের সর্বত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকে। প্রায়শই বিভিন্ন কম্পোজিশনের মাঝে হঠাৎই প্রতীয়মান হয় বৃত্তীয় বা ত্রিভূজাকৃতি ফর্ম, ভাঙা স্তম্ভ, কলাম বা অজানা কোনো বস্তু। সংলগ্ন কলাম, ত্রিভূজাকার ফর্ম, ভাঙা স্তম্ভ, নিগূঢ় ইমেজ, কোমল ও উজ্জ্বল রঙ আমার সৃষ্টিতে একধরনের প্যানোরামা-প্রভাব তৈরি করে। আশা, আকাঙ্ক্ষা, স্বপ্ন এবং দুঃস্বপ্ন হলো আবেগসঞ্জাত অনুভূতি আর অভিজ্ঞতা। এ সমস্ত উপাচার দিয়ে আমি বিচিত্র প্রতীকী ধারায় আামার ক্যানভাস চিত্রিত করি।”

বর্তমানে কানাডায় বসবাসরত এই ফ্রিল্যান্স আর্টিস্টের জন্ম ঢাকায় ১৯৬০ সালে। চারুকলা ইনস্টিটিউট থেকে ড্রয়িং ও পেইন্টিংয়ে ১৯৮৬ সালে স্নাতকোত্তর শেষে আধুনিক চিত্রকলার ওপর উচ্চতর পড়াশোনা করেন প্যারিসের আকাদেমিয়া দ্য লা শ্যমিয়েখ (১৯৯৩-৯৪) এ।

শিল্পী বলেন, “আমি সবসময়ই প্রকৃতির মাঝে অসীমকে খুঁজে বেরিয়েছি। স্বপ্নাতুর এবং আবেগমথিত এক জগতে বাস করে বাস্তব পৃথিবীর সাথে তার যোগসূত্র আমার ধ্যানের অন্যতম বিষয়।

“আমার বিশ্বাস মহাজাগতিক পরিবর্তন সতত ঘটমান এবং তা আমার ক্যানভাসে বিচিত্র ও বিভিন্ন ডাইমেনশন সৃষ্টি করে চলেছে। আমি নতুন নতুন থিম নিয়ে পরীক্ষা করতে পছন্দ করি যা আমার কাজের ওপর প্রভাব ফেলে। বিভিন্ন সময়ে আমার পেইন্টিংয়ে দৃশ্যমান হয় প্রায় পরস্পরবিরোধী রঙের দ্বান্দ্বিক নৃত্য, কিন্তু যার মাঝেও রয়েছে এক শোভাময় সংমিশ্রণ আর টেক্সচারের সংবেদনশীল অনুভব।"

এই শিল্পীর পুরস্কারের ঝুলিতে আছে প্যারিসের গ্যালারি বিনানোস আয়োজিত ১৯৯৪ সালের আর্টিস্ট অব দ্য ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় পেইন্টিংয়ে প্রথম পুরস্কার, নবম এশিয়ান আর্ট বিয়েনাল (১৯৯৯), বাংলাদেশ চারুশিল্পী সংসদ বিয়েনাল (২০০০) এবং ন্যাশনাল আর্ট এক্সিবিশন (২০০১) এ অনারেবল মেনশন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক