হাই কোর্টে ক্ষমা চেয়ে নুরের হলফনামা: ‘সংশোধনে’ ফের সময়

নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে দেওয়া তার হলফনামা আগামী ৬ মার্চ জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছে আদালত।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Feb 2024, 12:26 PM
Updated : 15 Feb 2024, 12:26 PM

বিচারকদের নিয়ে ‘আপত্তিকর’ বক্তব্যে আদালত অবমাননার রুলের জবাবে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে গণঅধিকার পরিষদের সভাপতি নুরুল হক নুর হলফনামা দিলেও তা সংশোধন করে আবার জমা দিতে বলেছে হাই কোর্ট। 

আদালত এ হলফনামা সংশোধন করে আগামী ৬ মার্চ আবার জমা দেওয়ার আদেশ দিয়েছে। 

বৃহস্পতিবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিলের বেঞ্চে তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করেন। 

আদেশের পর নুরের আইনজীবী কায়সার কামাল সাংবাদিকদের বলেন, “আদালতের কাছে উনি আমাদের মাধ্যমে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন। আদালত বলেছেন আরও কিছু, অর্থাৎ আজকের যে নিঃশর্ত ক্ষমা সে ক্ষমাটা আদালত হয়ত বা সক্রিয়ভাবে বা আমরা যেভাবে দিয়েছি সেভাবে বিবেচনা করেন নাই। বিধায় উনি আমাদেরকে সময় দিয়েছেন।

“আমরা সময় নিয়েছি। আগামী ৬ মার্চ এ কনটেম্পট ম্যাটারটা মহামান্য আদালতের কার্যতালিকায় থাকবে।“ 

আদালতে জমা দেওয়া হলফনামায় ভবিষ্যতে এ ধরনের বক্তব্য আর না দেওয়া সম্পর্কিত কোনো কথা না থাকায় জ্যেষ্ঠ বিচারক বিষয়টি নুরের আইনজীবীদের নজরে আনেন। তখন তার আইনজীবী সেটা দেওয়ার জন্য সময় প্রার্থনা করেন। 

গত ৭ ডিসেম্বর ‘বিচারকদের সতর্ক করে ভিপি নুরের আপত্তিকর বক্তব্য’ শিরোনামে সংবাদমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

বিচারক সম্পর্কে ‘আপত্তিকর‘ বক্তব্য, নুরকে হাই কোর্টে তলব 

ঢাকার বিজয়নগর পানির ট্যাংক মোড়ে এক সমাবেশের খবর নিয়ে সংবাদটি করা হয়। সেখানে বিচারকদের বিরুদ্ধে নুরুল হক নুর ‘আপত্তিকর’ বক্তব্য দেন। 

গত ১৭ ডিসেম্বর হাই কোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিলের বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত রুল জারি করে এবং ১৭ জানুয়ারি তাকে আদালতে হাজির হতে বলা হয়। 

ওইদিন এ বিষয়ে নুরের ব্যাখ্যা, শুনানি ও আদেশের জন্য দিন রাখা হয় ১৫ ফেব্রুয়ারি।