প্রসাধনীর ব্যবসা করতে লাইসেন্স নিতে হবে ঔষধ প্রশাসন থেকে

“কসমেটিকস ব্যাবসায়ীদের ক্ষতি করা সরকারের উদ্দেশ্য নয়। মানুষের স্বাস্থ্য এবং ভেজাল ওষুধ ও প্রসাধনী প্রতিরোধ করাই সরকারের উদ্দেশ্য,” বলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Feb 2024, 11:18 AM
Updated : 10 Feb 2024, 11:18 AM

সংসদে পাস হয়েছে ‘ঔষধ ও কসমেটিকস বিল, ২০২৩’; ফলে এখন থেকে প্রসাধনীর ব্যবসা করতে হলেও ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর থেকে লাইসেন্স নিতে হবে। নতুন আইনে ওষুধের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করলে বা বেশি মুনাফার লোভে মজুদ করলে ১৪ বছর জেল এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানার বিধানও রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সংসদে বিলটি পাসের জন্য উত্থাপন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এটি কণ্ঠভোটে পাস হয়। ১৯৪০ সালের ড্রাগস আইন এবং ১৯৮২ সালের আইন দুটিকে এক করে যুগোপযোগী করে নতুন আইন হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। তিনি বলেছেন, কসমেটিকস ব্যাবসায়ীদের ক্ষতি করা সরকারের উদ্দেশ্য নয়। মানুষের স্বাস্থ্য এবং ভেজাল ওষুধ ও প্রসাধনী প্রতিরোধ করাই সরকারের উদ্দেশ্য।

নতুন আইনে বলা হয়েছে, রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া কোনো ওষুধ বিক্রি করলে ২০ হাজার টাকা জরিমানা হবে।

বিলের তফসিলে ৩০ ধরনের অপরাধ চিহ্নিত করে সেগুলোর ক্ষেত্রে কী সাজা হবে তা উল্লেখ করা হয়েছে। এক্ষেত্রে অপরাধের ধরণ অনুযায়ী সর্বনিম্ন ১০ হাজার টাকা জরিমানা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১৪ বছরের জেল ও ১০ লাখ টাকা জরিমানার বিধান করা হয়েছে। 

(প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)