কিম জং-উনের ট্রেন যেন এক চলন্ত দুর্গ

বুলেটপ্রুফ ট্রেনটি ভারি কাঠামো নিয়ে ঘণ্টায় মাত্র ৫০ কিলোমিটার বেগে চলে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Feb 2024, 11:17 AM
Updated : 6 Feb 2024, 11:17 AM

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে ট্রেনে চড়ে রাশিয়ায় পৌঁছেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন। যে ট্রেনটিতে চড়ে তিনি রাশিয়া পাড়ি দিয়েছেন, তা নিয়ে কৌতূহলী অনেকেই।

সবুজের মাঝে হলুদ রঙের রেখা টানা ট্রেনটিকে রীতিমতো সাঁজোয়া যান বলা যায়। নিরাপত্তার সব রকম আয়োজন থাকা বুলেটপ্রুফ ট্রেনটি ভারি কাঠামো নিয়ে ঘণ্টায় মাত্র ৫০ কিলোমিটার বেগে চলে।

 শুধু কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাই নয়, ট্রেনটি বিলাসবহুলও বটে। ট্রেনের ভেতরে একটি রেস্তোরাঁ রয়েছে, যেখানে দারুণ সব ফরাসি ওয়াইন পরিবেশন করা হয়। খাবারের মধ্যে তাজা লবস্টার দিয়ে তৈরি পদও রয়েছে। সেখানে রাশান, চাইনিজ, কোরিয়ান, জাপানিজ ও ফরাসি সব ধরনের খাবার পাওয়া যায়।

ট্রেনটি যে রাস্তায় চলে সেটিতে আগে চিরুনি তল্লাশি চালান নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা রক্ষীরা। যে স্টেশন আসতে চলেছে, সেটিতে বোমা পেতে রাখা বা অন্যান্য নিরাপত্তা হুমকি আছে কি না, তাও আগেই পরীক্ষা করা হয়।

কিমের সপরিবারে ট্রেনে বিদেশ সফরের ঐতিহ্য রয়েছে। কিম জং উনের দাদা কিম ইল সুং ট্রেনে করে ভিয়েতনাম ও পূর্ব ইউরোপ সফর করেছিলেন। তার ছেলে কিম জং ইল, যিনি ১৯৯৪ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত উত্তর কোরিয়া শাসন করেছেন, তিনিও ট্রেনেই ভ্রমণ করতেন। কারণ তিনি উড়োজাহাজে উঠতে ভয় পেতেন। তিনি ২০০১ সালে ১০ দিন ট্রেন ভ্রমণ করে মস্কো গিয়ে পুতিনের সঙ্গে দেখা করেছিলেন। দাদা ও বাবার মত কিম জং-উনও ট্রেনেই ভ্রমণ করেন।

সংবাদ সূত্র: বিবিসি

 (প্রতিবেদনটি প্রথম ফেইসবুকে প্রকাশিত হয়েছিল ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক)