টাইফুন কবলিত জাপানে রেকর্ড বৃষ্টি, ১ জনের মৃত্যু

প্রবল এই ঝড়ের কারণে জাপানে যান চলাচল ব্যাহত হয়েছে এবং কিছু কারাখানা উৎপাদন বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 19 Sept 2022, 09:05 AM
Updated : 19 Sept 2022, 09:05 AM

টাইফুন নানমাদোলের প্রভাবে জাপানের কয়েকটি অংশজুড়ে প্রবল ঝড় ও রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছে এবং অন্তত একজনের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার রাতে অন্যতম প্রলয়ঙ্করী একটি ঘূর্ণিঝড় জাপানের দক্ষিণাঞ্চলীয় কাগোশিমা শহরের কাছে সাগর থেকে স্থলে উঠে আসে, এরপর কিউশু দ্বীপে তাণ্ডব চালিয়ে মূলদ্বীপ হনশুর দিকে এগিয়ে যায়। চলতি বছর জাপানে আঘাত হানা ১৪তম তাইফুন এই নানমাদোল।

প্রবল এই ঝড়ের কারণে জাপানে যান চলাচল ব্যাহত হয়েছে এবং কিছু কারাখানা উৎপাদন বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

দেশটির প্রধানমন্ত্রী ফুমিয়ো কিশিদার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে যাওয়ার কথা ছিল, সেখানে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে তার ভাষণ দেওয়ার কথা আছে; কিন্তু ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতি পর্যবেক্ষণের জন্য তিনি সেখানে যাওয়া মঙ্গলবার পর্যন্ত পিছিয়ে দিয়েছেন বলে খবর গণমাধ্যমের।

জাপানের আবহাওয়া সংস্থার (জেএমএ) একজন কর্মকর্তা এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, “ভারি বৃষ্টি, তীব্র ঝড়, প্রবল ঢেউ ও জলোচ্ছ্বাসের বিষয়ে আমাদের অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে।”

দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত গণমাধ্যম এনএইচকের ফুটেজে দেখা গেছে, কিউশুর মিয়াজাকি বিভাগে একটি নদীর পানি উপচে ক্ষেত ও রাস্তা তালিয়ে গেছে। অন্য ভিডিওতে দেখা গেছে, নদী তীরবর্তী একটি বাড়ি পানির স্রোতের মধ্যে দাঁড়িয়ে আছে, অনেক ভবনের ছাদ উড়ে গেছে আর বিলবোর্ডগুলো উপড়ে পড়েছে।

এনএইচকে জানিয়েছে, নদীর উপচে পড়া পানিতে গাড়ি ডুবে ভেতরে থাকা এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে আর চল্লিশোর্ধ এক ব্যক্তি ভূমিধসে তার কুঁড়েঘর চাপা পড়ার সময় ভেতরে ছিলেন কিনা দমকল কর্মীরা তা নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করছেন।

নানমাদোলের তাণ্ডবে অন্তত ৬৯ জন আহত হয়েছে বলে এনএইচকে জানিয়েছে।

জাপানের বাণিজ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, সোমবার সকালে প্রায় ৩ লাখ ৪০ হাজার বাড়ি বিদ্যুৎবিহীন ছিল, যার অধিকাংশই কিউশুতে।  

কিউশু রেলওয়ে জানিয়েছে, তারা রেল চলাচল বন্ধ রেখেছে। জাপান এয়ারলাইন কোম্পানি লিমিটেড এবং এএনএ হোল্ডিং প্রায় ৮০০ ফ্লাইট বাতিল করেছে বলে এনএইচকে জানিয়েছে।

সোমবার স্থানীয় সময় সকাল ১১টার দিকে নানমাদোল হনশু দ্বীপের পশ্চিম প্রান্তের ইয়ামাগুচি বিভাগে অবস্থান করছিল এবং উত্তর উপকূল ধরে ঘণ্টায় প্রায় ১৫ কিলোমিটার বেগে উত্তরপূর্ব দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল বলে জেএমএ জানিয়েছে।   

মঙ্গলবার ঝড়টি হনশু দ্বীপের উত্তর উপকূলে পৌঁছতে পারে আর তারপর প্রশান্ত মহাসাগরের ওপর দিয়ে এগোতে পারে বলে পূর্বাভাসে জানিয়েছে জেএমএ।

আবহাওয়া সংস্থাটি জানিয়েছে, পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় জাপানের প্রধান শিল্পাঞ্চল টোকেইতে সর্বোচ্চ ৪০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে।

ঝড়ের কারণে টয়োটা মোটর কর্পোরেশন তাদের বেশ কয়েকটি কারখানায় উৎপাদন বন্ধ রেখেছে বলে জানিয়েছে। আরও কয়েকটি উৎপাদন প্রতিষ্ঠান তাদের কারখানা বন্ধ রেখেছে। তবে ঝড়ের কারণে শিল্পক্ষেত্রে বড় ধরনের কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে খবর হয়নি।

টোকিওতে থেমে থেমে ভারি বৃষ্টি হলেও রাজধানীর জীবনযাত্রা মোটামুটি স্বাভাবিক ছিল। তবে সোমবার ছুটির দিন হওয়ায় অধিকাংশ স্কুলই বন্ধ আছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক