গাজায় ত্রাণকর্মী নিহত: ইসরায়েলের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে পোল্যান্ড-যুক্তরাজ্য

গাজায় ইসরায়েলের বিমান হামলায় ডব্লিউসিকে-এর নিহত কর্মীদের মধ্যে পোল্যান্ড, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক এবং যুক্তরাষ্ট্র-কানাডার দ্বৈত নাগরিকও রয়েছেন।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 April 2024, 05:34 PM
Updated : 2 April 2024, 05:34 PM

পোল্যান্ড ও যুক্তরাজ্য গাজায় বিমান হামলায় তাদের ত্রাণকর্মী নিহত হওয়ার ঘটনায় ইসরায়েলের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে।

সোমবার গাজার মধ্যাঞ্চলীয় দাইর আল বালাহ এলাকায় ইসরায়েলের বিমান হামলায় এনজিও ওয়ার্ল্ড সেন্ট্রাল কিচেন (ডব্লিউসিকে) এর সাত কর্মী নিহত হন।

ওই কর্মীদের মধ্যে পোল্যান্ডের একজন, যুক্তরাজ্যর তিনজনসহ অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্র-কানাডার এক দ্বৈত নাগরিকও রয়েছেন।

ডব্লিউসিকে বলছে, দাইর আল বালার একটি গুদাম থেকে চলে যাওয়ার সময় ত্রাণবাহী গাড়িবহরে হামলায় কর্মীরা নিহত হয়েছে। তারা সমুদ্রপথে গাজায় নেওয়া ১০০ টনের বেশি খাবার ওই গুদামে রেখে আসতে গিয়েছিল।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু স্বীকার করেছেন যে, ইসরায়েলি বাহিনী নিরীহ মানুষের ওপর হামলা করেছে। মঙ্গলবার এক ভিডিও বার্তায় নেতানিয়াহু বলেন অনিচ্ছাকৃতভাবে এমন ঘটনা ঘটে গেছে।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন বলেছেন, ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাটজ এর সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তিনি কাটজকে জানিয়ে দিয়েছেন যে, ত্রাণকর্মী নিহতের এমন ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না।

বিবিসি জানায়, এক্সে (সাবেক টুইটার) এক পোস্টে ক্যামেরন লেখেন, “ইসরায়েলকে জরুরি ভিত্তিতে ব্যাখ্যা দিয়ে বলতে হবে যে, এমন ঘটনা কীভাবে ঘটল। মাঠ পর্যায়ে ত্রাণকর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তাদেরকে বড় ধরনের বদল ঘটাতে হবে।”

ওদিকে, এক্সে পোলিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাডোস্লা সিকোরস্কি লিখেছেন, “আমি ব্যক্তিগতভাবে ইসরায়েলি রাষ্ট্রদূত ইয়াকভলিভনেকের কাছে জরুরি ব্যাখ্যা চেয়েছি।”

সোমবারের হামলার ঘটনার পর ত্রাণকাজ করা গোষ্ঠীগুলো উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, তারা যে কোনও সময়ের চেয়ে এখন তাদের কর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে বেশি চিন্তিত।

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেছেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে এমন ঘটনা ঘটেছে। যুদ্ধে এরকম ঘটে যায়। ইসরায়েল বিষয়টি শেষ পর্যন্ত খতিয়ে দেখবে এবং এমন ঘটনা যাতে আবার না ঘটে সেজন্য সবকিছু করবে।