পেরুর অভিশংসিত প্রেসিডেন্টকে আশ্রয় দেওয়ার বিবেচনায় মেক্সিকো

কংগ্রেসে অভিশংসিত হয়ে ক্ষমতা হারান পেরুর প্রেসিডেন্ট ক্যাস্তিয়ো, পরে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।  

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Dec 2022, 10:00 AM
Updated : 9 Dec 2022, 10:00 AM

মেক্সিকো জানিয়েছে, তারা পেরুর সাবেক সদ্য সাবেক প্রেসিডেন্ট পেদ্রো ক্যাস্তিয়োকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়ার কথা বিবেচনা করছে।

বুধবার পেরুর কংগ্রেসে অভিশংসিত হয়ে ক্ষমতা হারান নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ক্যাস্তিয়ো, পরে তাকে গ্রেপ্তার করে তার বিরুদ্ধে ‘বিদ্রোহের’ অভিযোগ আনা হয়।

ক্যাস্তিয়ো (৫৩) এখন রাজধানী লিমায় সরকারি হেফাজতে আছেন। তার রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনার অনুরোধ একজন আইনজীবীর মাধ্যমে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্টের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

Also Read: অভিশংসনে ক্ষমতা হারিয়ে গ্রেপ্তার ক্যাস্তিয়ো, পেরুর নতুন প্রেসিডেন্ট দিনা বলুয়ার্তে

মেক্সিকোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্সেলো ইবরার্দ জানিয়েছেন, দেশ দুটি এখন এ ইস্যুটি নিয়ে আলোচনা করছে।

পেরুর জাতীয় আইনসভা (কংগ্রেস) ভেঙ্গে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়ার পর ক্যাস্তিয়োকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেন দেশটির আইনপ্রণেতারা। 

অভিশংসনের মুখোমুখি হয়ে ক্যাস্তিয়ো বিরোধী দল নিয়ন্ত্রিত আইনসভা ভেঙ্গে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু কংগ্রেস তাকে উপেক্ষা করে অভিশংসনের পথে এগিয়ে যায় এবং তাকে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার পক্ষে প্রয়োজনীয় ভোট পায়। লিমার মেক্সিকো দূতাবাসে আশ্রয় নেওয়ার প্রচেষ্টা থেকে ক্যাস্তিয়োকে থামিয়ে দেন তার দেহরক্ষীরা।    

এর কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ভাইস প্রেসিডেন্ট দিনা বলুয়ার্তেকে (৬০) নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ পড়ায় কংগ্রেস।

বুধবার রাতে মেক্সিকোর প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাদরের কাছে কাছে পাঠানো এক চিঠিতে ক্যাস্তিয়োর আইনজীবী তাকে অনুরোধ করে বলেন, “বিচার সংস্থাগুলির ভিত্তিহীন হয়রানির মুখে তাকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়ার কথা বিবেচনা করুন। তারা কেবল ইচ্ছা বা অভিপ্রায়ের ঘোষণার জন্য তার বিচার করতে চায় যা কোনো ফৌজদারি অপরাধের মধ্যে পড়ে না।”  

ইবরার্দের ভাষ্য অনুযায়ী, পেরুতে নিযুক্ত মেক্সিকোর রাষ্ট্রদূত পাবলো মনরয় লিমায় ক্যাস্তিয়োর সঙ্গে দেখা করেছেন।

“তিনি ক্যাস্তিয়োকে শারীরিকভাবে সুস্থ পেয়েছেন এবং তার আইনজীবীকে তার সঙ্গে দেখেছেন,” বলেছেন ইবরার্দে।

২০২১ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বেলুয়ার্তে ক্যাস্তিয়োর রানিং মেট (ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী) ছিলেন। বুধবার ক্যাস্তিয়ো কংগ্রেস ভেঙ্গে দেওয়ার উদ্যোগ নিলে তিনি (বেলুয়ার্তে) দ্রুত তার থেকে দূরে সরে দাঁড়ান। পরে ক্যাস্তিয়োর উদ্যোগকে তিনি ‘অভ্যুত্থানের চেষ্টা’ বলে অভিহিত করেন। 

প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পর দেওয়া বক্তৃতায় বেলুয়ার্তে পেরুবাসীদের ‘জাতীয় ঐক্যের’ জন্য এগিয়ে আসার এবং তাকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সুযোগ দেওয়ার জন্য রাজনৈতিক লড়াইয়ে বিরতি দেওয়া আহ্বান জানিয়েছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, এমনকি পেরুর মানের তুলনায়ও ক্যাস্তিয়োর প্রেসিডেন্সি অস্থির ছিল; পেরু এমন দেশ যেটি ২০২০ সালে পাঁচ দিনের মধ্যে তিনজন প্রেসিডেন্ট দেখেছে।     

বামপন্থি সাবেক এই স্কুল শিক্ষক ২০২১ সালের জুনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার ডানপন্থি প্রতিদ্বন্দ্বী কেইকো ফুজিমোরিকে অল্প ব্যবধানে পরাজিত করেন। কিন্তু স্বল্প রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা ও শত্রুভাবাপন্ন কংগ্রেসের কারণে তিনি দ্রুত খেই হারিয়ে ফেলেন।

তার মন্ত্রিসভায় বারবার পরিবর্তন আসতে থাকে এবং তার ১৮ মাসের দায়িত্বকালে পাঁচবার প্রধানমন্ত্রী পরিবর্তন করেন। এ সময় ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগও ওঠে, যাকে ক্যাস্তিয়ো ‘রাজনৈতিক হয়রানি’ বলে অভিহিত করেছেন। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক