রিজার্ভ সৈন্য সমাবেশে ‘ত্রুটির’ কথা স্বীকার করল রাশিয়া

ত্রুটি শুধরে নেওয়া হচ্ছে, বলেছেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Sept 2022, 08:43 AM
Updated : 27 Sept 2022, 08:43 AM

ইউক্রেইনে লড়তে রিজার্ভ সৈন্যদের ডাকার ক্ষেত্রে কিছু ত্রুটি হয়েছে বলে স্বীকার করে নিয়েছে ক্রেমলিন।

সেনাসমাবেশ নিয়ে রাশিয়ার ভেতরেই ব্যাপক প্রতিবাদ-বিক্ষোভের মুখে সোমবার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মুখপাত্র এ ত্রুটির কথা স্বীকার করে নেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

“ডিক্রি লংঘনের কিছু ঘটনা ঘটেছে। সব ত্রুটি ঠিক করে নেওয়া হচ্ছে,” বলেছেন পুতিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ।

ডিক্রিতে কেবল সামরিক বাহিনীতে কাজ করার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন রিজার্ভ সদস্যদের ডাকার কথা থাকলেও একাধিক খবরে বাহিনীতে কাজের অভিজ্ঞতা নেই, বেশি বয়সী ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদেরও ডাকা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গত সপ্তাহে পুতিন আংশিক সেনাসমাবেশের নির্দেশ দেওয়ার পর প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু জানান, তারা রিজার্ভ থেকে সর্বোচ্চ তিন লাখ লোককে ডাকবেন।

ক্রেমলিনের মূল ওয়েবসাইটে পুতিনের ডিক্রির যে সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছে, তাতে রিজার্ভ থেকে কত সৈন্য নেওয়া হবে তার সুনির্দিষ্ট সংখ্যা না থাকায় সরকারবিরোধী একাধিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে ১০ লাখের মতো সৈন্য নেওয়া হতে পারে বলে ধারণা দেওয়া হয়। এরপরই রাশিয়ার বিভিন্ন অংশে সৈন্যসমাবেশবিরোধী প্রতিবাদ দানা বাধে।

ইউক্রেইন এবং পশ্চিমা একাধিক দেশের সামরিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাত মাসের ইউক্রেইন যুদ্ধে রাশিয়া যে ব্যাপক মার খেয়েছে, রিজার্ভ সৈন্য সমাবেশের ডাক তাই দেখাচ্ছে।

সেনাসমাবেশের নির্দেশ দেওয়ার পর রাশিয়াজুড়ে হওয়ার বিভিন্ন বিক্ষোভ থেকে দুই হাজারেরও বেশি মানুষকে আটক করার খবর পাওয়া গেছে।

সোমবার এক ব্রিফিংয়ে পুতিনের মুখপাত্র পেসকভ তাদের প্রক্রিয়ায় কিছু ভুল থাকার কথা স্বীকার করে নিয়ে বলেছেন, “পরিস্থিতি শুধরে নিতে কিছু অঞ্চলের গভর্নররা সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন।”

দেশের কোথাও জরুরি অবস্থা জারি হয়েছে কিনা কিংবা সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে অবগত নন বলেও জানান ক্রেমলিনের এ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

সেনাসমাবেশ নিয়ে জনগণের একাংশের ক্ষোভের সর্বশেষ বহিঃপ্রকাশ দেখা গেছে সোমবার সাইবেরিয়ার শহর উসৎলিমস্কে, সেখানে এক ব্যক্তির ছোড়া গুলিতে সেনাবাহিনীর এক রিক্রুটমেন্ট কর্মকর্তা গুরুতর জখম হয়েছেন বলে জানা গেছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাওয়া ফুটেজে হামলাকারীকে ওই কর্মকর্তার দিকে এগিয়ে যেতে এবং তাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে দেখা গেছে। বন্দুকধারী ধমকের সুরে আশপাশের লোকজনকে পালিয়ে যেতে বলার পর ভবনের ভেতর থাকা অনেকে আতঙ্কে চিৎকার করেন ও দৌড় দেন।

গত কয়েকদিন উত্তর ককেশাসে রাশিয়ার দাগেস্তান প্রজাতন্ত্রে সেনাসমাবেশ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়। বিক্ষোভ চলাকালে নিরাপত্তা বাহিনী দাগেস্তানের রাজধানী মাখাচকালা থেকেই শতাধিক ব্যক্তিকে আটক করেছে বলে জানিয়েছে রাশিয়ায় মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা সংগঠন ওভিডি-ইনফো।

রাশিয়াজুড়ে একাধিক সেনা রিক্রুটমেন্টে কেন্দ্র ও প্রশাসনিক ভবনে অগ্নিসংযোগেরও খবর পাওয়া গেছে।

ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেইনে সেনা পাঠানোর আগে রাশিয়া প্রতিবেশী দেশটির সীমান্তের কাছে এক লাখ ৯০ হাজারের মতো সেনা জড়ো করেছিল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক