রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ ডুবিয়ে দেওয়ার দাবি ইউক্রেইনের

ইভানোভেটস নামের ছোট ওই যুদ্ধজাহাজ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হতো। ইউক্রেইনের সামরিক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের দাবি, ‘যুদ্ধজাহাজটিতে সরাসরি আঘাত করার’ পর সেটি সমুদ্রে ডুবে যায়।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 1 Feb 2024, 02:26 PM
Updated : 1 Feb 2024, 02:26 PM

রাশিয়ার দখল করা ক্রিমেয়ার কাছে একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনার সময় দেশটির ব্ল্যাক সি ফ্লিটের একটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণকারী জাহাজ ধ্বংস করে দেওয়ার দাবি করেছে ইউক্রেইন।

ইভানোভেটস নামের ছোট ওই যুদ্ধজাহাজ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হতো। ইউক্রেইনের সামরিক গোয়েন্দাদের দাবি, ‘যুদ্ধজাহাজটিতে সরাসরি ড্রোন হামলার পর’ সেটি সমুদ্রে ডুবে যায়।

যে হামলার একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে বলে জানায় বিবিসি। ভিডিওতে যুদ্ধজাহাজে হামলা এবং বিশাল একটি বিস্ফোরণ হতে দেখা যায়।

এ হামলার বিষয়ে রাশিয়ার পক্ষ থেকে এখনো কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

তবে রাশিয়ার মিলিটারি ব্লগার ‘ভোয়েনকোর কোতেনোক’ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টেলিগ্রামে এক পোস্টে লেখেন, তিনটি নেভাল ড্রোন তিনবার হামলা চালানোর পর রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজটি ডুবে যায়।

ইউক্রেইনের প্রধান গোয়েন্দা অধিদপ্তর থেকে বলা হয়, তাদের সেনাদের একটি বিশেষ ইউনিট ‘গ্রুপ ১৩’ লেক ডনুজলাভ থেকে হামলা চালিয়ে রাশিয়ার ওই নৌযানটি ধ্বংস করে। লেক ডনুজলাভ ক্রিমেয়ান পেনিনসুলার পশ্চিম পাড়ে অবস্থিত একটি নোনাপানির উপসাগর। যেখানে ইউক্রেইনের একটি নৌঘাঁটি রয়েছে।

রোববারের ওই হামলার কারণে ওই অঞ্চলে রাশিয়ার একটি তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান ব্যর্থ হয়েছে বলেও গোয়েন্দা অধিদপ্তর থেকে দাবি করা হয়েছে।

গত কয়েক মাসে ইউক্রেইন কৃষ্ণ সাগরের মধ্যে এবং তার আশেপাশের অঞ্চলে রাশিয়ার বিরুদ্ধে ধারাবাহিক কিছু সফলতা পেয়েছে।