ইউক্রেইনে লিওপার্ড–২ ট্যাংক পাঠাতে পোল্যান্ডকে বাধা দেবে না জার্মানি

ইউক্রেইন বলছে, আগামী কয়েকমাসে রাশিয়া নতুন করে হামলা চালাতে পারে। তার আগেই ইউক্রেইনীয় স্থল সেনাদের চলাচল এবং সুরক্ষার জন্য যুদ্ধ ট্যাংক দরকার তাদের।

রয়টার্স
Published : 23 Jan 2023, 11:50 AM
Updated : 23 Jan 2023, 11:50 AM

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, পোল্যান্ড লিওপার্ড–২ ট্যাংক ইউক্রেইনে পাঠাতে চাইলেও তার সরকার বাধা দেবে না। ইউক্রেইনের জন্য এ এক অগ্রগতিরই লক্ষণ।

কারণ, রাশিয়ার নতুন হামলা শুরুর আগে দিয়ে ইউক্রেইন তাদের বাহিনীর শক্তি বাড়াতে চায়।

ইউক্রেইন বলছে, আগামী কয়েকমাসে রাশিয়ার নতুন করে হামলা চালানোর আশঙ্কা আছে। তার আগেই ইউক্রেইনের স্থল সেনাদের চলাচল এবং সুরক্ষার জন্য যুদ্ধ ট্যাংক দরকার তাদের।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা কয়েক মাস ধরেই জার্মানির তৈরি লিওপার্ড–২ ট্যাংক সরবরাহ করতে পশ্চিমা মিত্রদেশগুলাকে আহ্বান জানিয়ে এসেছেন। কিন্তু বার্লিন তাতে রাজি ছিল না।

নেটো দেশগুলোর হাতে এই ট্যাংক আছে। তবে সেগুলো ইউক্রেইনে হস্তান্তর করতে হলে বার্লিনের অনুমোদনের দরকার হয়।

পশ্চিমা মিত্রদেশগুলো গত সপ্তাহে ইউক্রেইনের জন্য শত শত কোটি ডলারের অস্ত্র সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিলেও জার্মান-নির্মিত লিওপার্ড যুদ্ধ ট্যাংক ইউক্রেইনকে দেওয়ার ক্ষেত্রে ভেটো তুলে নিতে তারা জার্মানিকে রাজি করাতে পারেনি।

কিন্তু এখন দৃশ্যত জার্মানি তাদের অবস্থান পরিবর্তন করায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনালিনা বায়েরবোক বলেছেন, পোল্যান্ড জার্মানির অনুমোদন ছাড়াই লিওপার্ড–২ ট্যাংক ইউক্রেইনে পাঠাতে চাইলে তার সরকার বাধা দেবে না।

পোল্যান্ডের এমন সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে জার্মান সরকার কী করবে, সে প্রশ্নের উত্তরে আনালিনা বায়েরবোক ফ্রান্সের এলসিআই টিভি-কে বলেন, “আপাতত এ ব্যাপারে আমাদের কাছে কিছু জানতে চাওয়া হয়নি। তবে আমরা এক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াব না।”

ইউক্রেইনে লিওপার্ড–২ সরবরাহের জন্য প্রচুর চাপের মুখে রয়েছে জার্মানি। তবে চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎসের সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট দল ঐতিহ্যগত কারণেই ইউক্রেইনে সামরিক দিক থেকে জড়িয়ে যেতে চায় না। তাছাড়া, রাশিয়া এর কী প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে তা নিয়েও দলটি শঙ্কিত।

জার্মান চ্যান্সেলর শলৎস রোববার প্যারিসে এক সম্মেলনে বলেছিলেন, “যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা মিত্রদের সঙ্গে সমন্বয়ের মাধ্যমেই ইউক্রেইনে সব অস্ত্র সরবরাহের সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

একই সংবাদ সম্মেলনে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট বলেন, তিনি ইউক্রেনে লেক্লার্ক ট্যাংক পাঠানোর সম্ভাবনা নাকচ করছেন না। জার্মানিসহ অন্যান্য মিত্রদের সঙ্গে সমন্বয় করে এ পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক