এআই ব্যবহারে তৈরি ছবিতে লেবেল যোগ করবে মেটা

ব্যবস্থাটি একবার চালু হলে ওপেনএআই, মাইক্রোসফট, অ্যাডোবি, মিডজার্নি, শাটারস্টক ও গুগলের চালানো সেবায় একই ধরনের লেবেল যোগ করা হবে।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Feb 2024, 08:14 AM
Updated : 7 Feb 2024, 08:14 AM

ওপেনএআই বা গুগলের মতো কোম্পানি যারা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সহায়তায় ছবি তৈরির সুবিধা দেয়, সেইসব ছবি মেটার কোনো প্ল্যাটফর্মে পোস্ট করার বেলায় লেবেল জুড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেটা।

মঙ্গলবার কোম্পানিটির নীতিমালা বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তা বলেছেন, এখন থেকে মেটার বাইরে অন্যান্য কোম্পানির এআই ব্যবস্থার বানানো ছবিতে বিভিন্ন ধরনের অদৃশ্য চিহ্ন ব্যবহার নিশ্চিত করবে কোম্পানিটি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম জায়ান্ট হিসেবে পরিচিত কোম্পানিটির বৈশ্বিক জনসংযোগ বিভাগের প্রেসিডেন্ট নিক ক্লেগ এক ব্লগ পোস্টে লেখেন, এখন থেকে ফেইসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও থ্রেডসে অদৃশ্য চিহ্ন বহনকারী কনটেন্টে লেবেল যোগ করবে মেটা। আর এর মাধ্যমে ব্যবহারকারী বুঝতে পারবেন যে, কোন ছবিগুলো আসল, আর কোনগুলো ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে তৈরি।

নিজস্ব এআই ব্যবস্থার মাধ্যমে তৈরি সকল কনটেন্টে এরইমধ্যে লেবেল যোগ করছে মেটা।

আরও পড়ুন

Also Read: এআই পণ্যে জলছাপ যোগ করছে মেটা

রয়টার্স বলছে, উদীয়মান প্রযুক্তিটি নিয়ে কাজ করা নির্মাতা কোম্পানিগুলোর জেনারেটিভ এআই ব্যবস্থা যেন সম্ভাব্য ক্ষতির কারণ হয়ে না দাঁড়ায়, তা নিশ্চিত করতে যে মানদণ্ড প্রয়োজন, সেটিরই প্রাথমিক পদক্ষেপ হল মেটার এ ঘোষণা।

ক্লেগ বলেছেন, ব্যবস্থাটি একবার চালু হলে ওপেনএআই, মাইক্রোসফট, অ্যাডোবি, মিডজার্নি, শাটারস্টক ও গুগলের চালানো সেবায় একই ধরনের লেবেল যোগ করা হবে।

রয়টার্সকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ক্লেগ বলেন, তিনি আশা করছেন, এ মুহুর্তে কোম্পানিগুলো নির্ভয়েই নিজস্ব এআই ব্যবস্থার তৈরি ছবিতে লেবেল যোগ করতে পারে। তবে, ভিডিও ও অডিও কনটেন্ট চিহ্নিত করা খানিকটা জটিল। আর এটি নিয়ে এখনও কাজ চলছে।

“প্রযুক্তিটি এখনও পরিপক্ব হয়ে ওঠেনি, বিশেষ করে অডিও ও ভিডিও’র বেলায়। তবে আমরা এমন এক ধরনের জোয়ার তৈরি করতে চাচ্ছি, যা পরবর্তীতে গোটা শিল্পই অনুসরণ করবে,” বলেন ক্লেগ।

তিনি আরও যোগ করেন, ব্যবহারকারীর নিজের তৈরি ভিডিও ও অডিও’তে লেবেল যোগ করার শর্তও আনতে পারে মেটা, যেটি পূরণে ব্যর্থ হলে আর্থিক জরিমানাও গোনা লাগতে পারে।

তিনি আরও যোগ করেন, চ্যাটজিপিটির মতো টেক্সটভিত্তিক এআই টুলের তৈরি কনটেন্ট শনাক্ত করার মতো কোনো বিশ্বাসযোগ্য মেকানিজম নেই এ মুহুর্তে।

এদিকে, এনক্রিপ্টেড মেসেজিং সেবা হোয়াটসঅ্যাপে শেয়ার করা জেনারেটিভ এআইভিত্তিক কনটেন্টের ক্ষেত্রেও এমন লেবেল যোগ করা হবে কি না, তা নিয়ে রয়টার্সকে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি মেটার এক মুখপাত্র।

গেল সোমবার কোম্পানির বিভিন্ন সেবায় ভুলভাবে উপস্থাপিত ডক্টরড ভিডিও নিয়ে আলোচনা করেছে মেটার স্বাধীন ওভারসাইট বোর্ড। তাদের ভাষ্যমতে, এমন ভিডিও’র সংখ্যা খুবই কম। তাই এগুলো সরিয়ে না ফেলে বরং লেবেল যোগ করা উচিৎ।

ক্লেগ বলেন, ওভারসাইট বোর্ডের সমালোচনার সঙ্গে তিনি একমত।

তার মতে, মেটার বিদ্যমান নীতিমালা ‘এমন পরিবেশের সঙ্গে মানানসই নয়, যেখানে কৃত্রিম ও হাইব্রিড কনটেন্টের মাত্রা অনেক বেশি’ বোর্ডের এমন অবস্থান সঠিক ছিল।

তিনি আরও বলেন, মেটা যে এরইমধ্যে বোর্ডের নির্দেশনা মেনে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিচ্ছে, তারই জলজ্যান্ত প্রমাণ এ লেবেলিংয়ের ঘোষণা।