বিক্ষোভকারীদের ফোনে বিদেশি অ্যাপ খুঁজছে চীনা পুলিশ

চীনের কঠোর কোভিড নীতিমালার কারণে বাধাগ্রস্ত হয়েছিল ভুক্তভোগীদের উদ্ধার প্রক্রিয়া; আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগে বেরিয়ে আসতে পারেননি দালানের বাসিন্দারা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Nov 2022, 11:29 AM
Updated : 29 Nov 2022, 11:29 AM

কঠোর কোভিড নীতিমালা বিরোধী বিক্ষোভের জন্য সংগঠিত হতে দেশের বিদেশি অ্যাপ ব্যবহার করছেন চীনা নাগরিকরা। অবৈধ অ্যাপের খোঁজে সাধারণ নাগরিকদের যাত্রাপথে থামিয়ে তাদের ফোন ঘেটে দেখছে চীনের পুলিশ বাহিনী।

বছরের শুরু থেকেই কঠোর ‘জিরো-কোভিড’ নীতিমালা অনুসরণ করছে চীন। কিন্তু শুক্রবার শিনজিয়াং প্রদেশের এক দালানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১০ প্রাণহানির পর নীতিমালা বিরোধী বিক্ষোভে নেমেছেন চীন ও হংকংয়ের নাগরিকরা।

বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, চীনের কঠোর কোভিড নীতিমালার কারণে বাধাগ্রস্ত হয়েছিল ভুক্তভোগীদের উদ্ধার প্রক্রিয়া; আগুন ছড়িয়ে পড়ার আগে বেরিয়ে আসতে পারেননি দালানের বাসিন্দারা।

সংগঠিত হতে স্থানীয় প্ল্যাটফর্মগুলোর বদলে ইনস্টাগ্রাম, টুইটার এবং এনক্রিপ্টেড মেসেজিং অ্যাপ টেলিগ্রামের মতো বিদেশি অ্যাপগুলো ব্যবহার করছিলেন বিক্ষোভকারীরা।

মার্কিন দৈনিক ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও আরেক সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি জানিয়েছে, সাংহাইয়ের গুরুত্বপূর্ণ পরিবহন হাবগুলোতে সাধারণ নাগরিকদের ফোনে ওই বিদেশি অ্যাপগুলো আছে কি না খুঁজে দেখছে স্থানীয় পুলিশ। জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভ্যালে জানিয়েছে, একই পরিস্থিতি বেইজিং ও হাংঝৌউয়ের।

প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট টেকক্রাঞ্চ ও আরেক মার্কিন দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছে, টুইটার, টেলিগ্রাম ও ইনস্টাগ্রামের মতো নিষিদ্ধ প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করতে ভিপিএন (ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক) ব্যবহার করছেন চীনের বিক্ষোভকারীরা।

চীনের স্থানীয় সামাজিক মাধ্যমগুলোতে কঠোর সেন্সরশিপে আটকে যাচ্ছে বিক্ষোভ প্রসঙ্গ। চীনা সরকারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বিক্ষোভের নির্ভরযোগ্য খবরগুলো চাপা দেওয়ার জন্য ব্যাপকহারে স্প্যাম প্রচারের কথাও শোনা যাচ্ছে।

রাজধানী বেইজিংয়ে চীনা কর্মকর্তারা যাদের ফোনে বিদেশি অ্যাপ মিলছে তাদের ব্যক্তিগত তথ্য-উপাত্ত লিখে রেখে সতর্ক করে দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ডয়েচে ভ্যালের পূর্ব-এশিয়া প্রতিনিধি উইলিয়াম ইয়াং। সাধারণ নাগরিকরা পুলিশকে ফোন দেখাতে না চাইলে, পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনার হুমকি দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

আর বিক্ষোভের ছবি ডিভাইস থেকে মুছে না দিলে চীনের পুলিশ ফোনের মালিককে গ্রেপ্তারের হুমকি দিচ্ছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

শিনজিয়াংয়ে শুক্রবারের আগুর নেভাতে দমকল বাহিনীর সময় লেগেছিল তিন ঘণ্টা। দালানের এক বাসিন্দা বিবিসিকে জানিয়েছেন, আগুন লাগার পরেও তারা সময়মতো সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে পারেননি কারণ তারা কখন বাড়ি থেকে বেরোতে পারবেন সে বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক