‘রিলস’-এ গুরুত্ব দিতে ‘লাইভ শপিং’ বন্ধ করছে ফেইসবুক

“ভোক্তারা এখন ছোট ছোট ভিডিওর দিকে ঝুঁকছেন বলে আমরাও ফেইসবুক ও ইনস্টাগ্রামের রিলস ফিচারের দিকেই মনোযোগ ঘুরিয়ে দিচ্ছি। লাইভ শপিং ফেইসবুকে না থাকলেও ইনস্টাগ্রামে থাকবে।”

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 August 2022, 01:02 PM
Updated : 4 August 2022, 01:02 PM

লাইভস্ট্রিমে পণ্য নিয়ে প্রচারণা ও বিক্রির ‘লাইভ শপিং’ ফিচার বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ফেইসবুক। ‘রিলস’ ফিচারে জোর দিতেই অনলাইনে কেনাকাটার ফিচারটি বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে বিশ্বের বৃহত্তম সামাজিক মাধ্যম।

লাইভ শপিং ফিচারটি ১ অক্টোবর বন্ধ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছে ফেইসবুক। সাম্প্রতিক পদক্ষেপের ব্যাখ্যা দিয়ে প্ল্যাটফর্মটি বলেছে, “ভোক্তারা এখন ছোট ছোট ভিডিওর দিকে ঝুঁকছেন বলে আমরাও ফেইসবুক ও ইনস্টাগ্রামের রিলস ফিচারের দিকেই মনোযোগ ঘুরিয়ে দিচ্ছি। লাইভ শপিং ফেইসবুকে না থাকলেও ইনস্টাগ্রামে থাকবে।”

ফেইসবুক লাইভ শপিং ফিচারটি প্রথম চালু করেছিল ২০১৮ সালে, থাইল্যান্ডের বাজারে। কনটেন্ট নির্মাতাদের জন্য প্ল্যাটফর্মে নতুন আয়ের পথ তৈরি করেছিল এটি।

এর মাধ্যমে ফেইসবুক লাইভে নিজেরাই শপিং সেশন আয়োজন করতে পারতেন ইনফ্লুয়েন্সাররা। লাইভস্ট্রিমে বিভিন্ন পণ্য দেখিয়ে সরাসরি বিক্রির সুযোগও পেতেন তারা। ফেইসবুক বড় পরিসরে ফিচারটি চালু করে ২০২০ সালে। একই সঙ্গে প্ল্যাটফর্মে যোগ হয়েছিল ‘শপিং’ ট্যাব।

প্রযুক্তি সাইট ভার্জ জানাচ্ছে, চীনের বাজারে ‘লাইভ শপিং’ জনপ্রিয়তা পেলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশে তেমন সাড়া পায়নি ফিচারটি। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে লাইভ শপিং বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সোশাল মিডিয়া বাজারে ফেইসবুকের শীর্ষ প্রতিদ্বন্দ্বী টিকটকও।

‘রিলস’ ফিচার ফেইসবুক আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করেছে গত বছর। টিকটকের আদলে নতুন অ্যালগরিদম তৈরি করার কৌশলও বিবেচনা করে দেখেছে ফেইসবুক। প্ল্যাটফর্মের মূল কোম্পানি মেটা ইনস্টাগ্রামের ক্ষেত্রে নতুন অ্যালগরিদম প্রয়োগ করে ইতোমধ্যেই ব্যবহারকারীদের দুয়োর মুখে পড়েছে। বাধ্য হয়ে নতুন অ্যালগরিদম বাজার থেকে উঠিয়ে নেওয়ার ঘোষণাও দিয়েছে মেটা।

রিলস নিয়ে সবচেয়ে বেশি খেপেছেন ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারীরাই। প্ল্যাটফর্মটিকে বন্ধদের সঙ্গে পছন্দের ছবি শেয়ার করার প্ল্যাটফর্ম হিসেবেই দেখতে চান তাদের সিংহভাগ।

প্ল্যাটফর্মটি এখন ভিডিও প্ল্যাটফর্মে পরিণত হবে ঘোষণা দিয়ে ইতোমধ্যেই কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন ইনস্টাগ্রামের প্রধান নির্বাহী অ্যাডাম মোসেরি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক