'ইউনাইটেডের মালিকরা ক্লাবের কথা চিন্তা করে না'

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর মতে, গ্লেজার পরিবারের হাত ধরে শীর্ষ ক্লাবগুলোর সঙ্গে টেক্কা দিতে পারবে না ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Nov 2022, 10:14 AM
Updated : 15 Nov 2022, 10:14 AM

ক্লাব ও কোচকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্যের পর ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর তীর ধেয়ে গেল ক্লাবের মালিকদের দিকে। পর্তুগাল তারকার মতে, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের উন্নতি ও খেলার দিকে গ্লেজার পরিবার একেবারেই মনোযোগী নয়।

২০০৫ সালে ইউনাইটেডের মালিকানা কিনে নেয় গ্লেজার পরিবার। প্রথম মেয়াদে রোনালদো ক্লাবটিতে খেলেছিলেন ২০০৯ সাল পর্যন্ত। এরপর রিয়াল মাদ্রিদ ও ইউভেন্তুস ঘুরে গত বছর আবার ফেরেন পুরনো ঠিকানায়।

রোনালদোর এই দুই মেয়াদে ইউনাইটেডের মালিকানা এক থাকলেও ক্লাবটির চিত্র বদলে গেছে অনেকটাই। ২০১৩ সালে স্যার আলেক্স ফার্গুসন কোচিং থেকে সরে যাওয়ার পর আর প্রিমিয়ার লিগ জিততে পারেনি দলটি। ২০১৬-১৭ মৌসুমের পর জিততে পারেনি কোনো শিরোপা। এবার তো চ্যাম্পিয়ন্স লিগেই উঠতে পারেনি তারা।

গত মৌসুমে ষষ্ঠ স্থানে থেকে প্রিমিয়ার লিগ শেষ করায় এবার তারা খেলছে ইউরোপা লিগে। সবশেষ শিরোপাও তারা জিতেছিল এই প্রতিযোগিতায়, ২০১৭ সালে।

চলতি মৌসুমেও খুব ভালো অবস্থায় নেই ইউনাইটেড। লিগে ১৪ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে আছে তারা। ইউরোপা লিগে নকআউট পর্বের প্লে-অফে তাদের খেলতে হবে বার্সেলোনার বিপক্ষে।

রোনালদো নিজেও লড়ছেন ফর্ম ও দলে জায়গার জন্য। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে করেছেন মাত্র ৩ গোল। এছাড়া বেশ কিছু কান্ডে বিতর্কিত হয়েছেন তিনি, শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে ক্লাবের পক্ষ থেকে পেয়েছেন শাস্তিও।

সব মিলিয়ে ক্লাবে কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাওয়া রোনালদো সম্প্রতি ব্রডকাস্টার পিয়ার্স মর্গ্যানকে দেড় ঘণ্টার একটি সাক্ষাৎকার দেন। ‘পিয়ার্স মর্গ্যান আনসেন্সরড: নাইন্টি মিনিট উইথ রোনালদো’ নামের অনুষ্ঠানটি বুধ ও বৃহস্পতিবার দুটি পর্বে প্রচার হবে। 

তার আগে রোববার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি সান-এ রোনালদোর সঙ্গে আলাপচারিতা নিয়ে লেখেন মর্গ্যান। যেখানে উঠে আসে ইউনাইটেড কোচ এরিক টেন হাগের প্রতি তার ক্ষোভের বিষয়টি। ক্লাব তার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। 

এই সাক্ষাৎকারের আরও কিছু অংশ প্রকাশিত হয়েছে সোমবার রাতে। সেখানে গ্লেজার পরিবারের প্রতি ক্ষোভ জানিয়ে রোনালদো বলেন, এভাবে চলতে থাকলে শীঘ্রই শীর্ষ স্তর থেকে নেমে যাবে ইউনাইটেড।

“ক্লাবের মালিক, গ্লেজার পরিবার, তারা ক্লাব নিয়ে, পেশাদার খেলা নিয়ে ভাবে না।”

“ম্যানচেস্টার একটি মার্কেটিং ক্লাব - তারা মার্কেটিং থেকে অর্থ পায়। আগামী দুই বা তিন বছর ম্যানচেস্টারের (ইউনাইটেড) জন্য খেলাটির শীর্ষে থাকা কঠিন হবে।”

গ্লেজার পরিবারের কারো সঙ্গে তার কখনও সাক্ষাৎ হয়নি বলেও জানান রোনালদো।

বছরের পর বছর ধরে দল ব্যর্থ হওয়ায় ক্লাবের মালিকদের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে সমর্থকরা।

রোনালদো মনে করেন, ক্লাবের ভেতর কী হচ্ছে ভক্তদের তা জানার অধিকার আছে। ৩৭ বছর বয়সী এই ফুটবলারের মনে করেন, ক্রমেই প্রতিদ্বন্দ্বী দলগুলোর চেয়ে পিছিয়ে যাচ্ছেন তারা।

‘ভক্তরা সবসময়ই সঠিক। তাদের সত্যিটা জানা উচিত। খেলোয়াড়রা ক্লাবের জন্য সেরাটাই চায়। আমি ক্লাবের জন্য সেরাটা চাই। এই কারণেই আমি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে এসেছি, এই কারণে আমি এই ক্লাবটিকে ভালোবাসি।”

“ক্লাবের অভ্যন্তরে কিছু বিষয় ঘটছে, যা ম্যানচেস্টারকে সিটি, লিভারপুল এবং এমনকি এখন আর্সেনালের মতো শীর্ষ স্তরে পৌঁছাতে সাহায্য করছে না। বিষয়টা জটিল ও কঠিন, মানা যায় না।”

প্রকাশিত সাক্ষাৎকারের প্রথম অংশে রোনালদো দাবি করেন, ক্লাব থেকে তাকে জোর করে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। কোচ টেন হাগের প্রতি তার কোনো ধরনের শ্রদ্ধা নেই বলেও মন্তব্য করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার।

রোনালদোর এই সাক্ষাৎকারের প্রেক্ষিতে ইউনাইটেড সোমবার বিবৃতি দিয়ে জানায়, তারা পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে। এই ঘটনায় পর্তুগাল অধিনায়ককে অন্তত ১০ লাখ পাউন্ড জরিমানা করা হতে পারে বলে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমের খবর।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক