নেপালের বাংলাদেশ দূতাবাসে সাবিনাদের আনন্দময় সময়

মেয়েদের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপাজয়ী দলকে সংবর্ধনা দিয়েছে নেপালের বাংলাদেশ দূতাবাস।

কাঠমান্ডু থেকে মোহাম্মদ জুবায়েরবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Sept 2022, 05:24 PM
Updated : 20 Sept 2022, 05:24 PM

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস মেয়েদের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপাজয়ী মেয়েদের সংবর্ধনা দিয়েছে। রাষ্ট্রদূত সালাহউদ্দিন নোমান চৌধুরির বাসভবনে অন্যরকম সন্ধ্যা কাটিয়েছেন সাবিনা-কৃষ্ণাদের। কেউ ঢোল-তবলা বাজিয়েছেন, কারও হাতে ছিল দোতারা বা খঞ্জনি। মেয়েদের গলা ছেড়ে গাওয়া গানের কণ্ঠ মিলিয়েছেন দূতাবাসের কর্মীরাও। 

কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে সোমবার স্বাগতিক নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মতো সাফের শিরোপা জয় করে বাংলাদেশ। শিরোপাজয়ী দলকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সংবর্ধনা দেয় বাংলাদেশ ‍দূতাবাস। 

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূত সালাহউদ্দিন নোমান চৌধুরী শিরোপা জিতে দেশের মুখ উজ্জ্বল করা মেয়েদের শুভেচ্ছা জানান।   

“দক্ষিণ এশিয়ার মেয়েদের ফুটবলে বাংলাদেশ শিরোপা জিতেছে, এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। বাংলাদেশ দল যে পারফরম্যান্স দেখিয়েছে, তাতে আমরা গর্বিত। (এই অঞ্চলে) অন্যতম একটি শ্রেষ্ঠ দল হিসেবে তারা আবির্ভুত হয়েছে এবং আমরা আশা করি, এই দলটি অনেক দূর যাবে। এশিয়ায় একটা বড় দল হিসেবে আবির্ভূত হবে, আমরা এই আশা করি।”     

বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের আমন্ত্রণে অনুষ্ঠানে আসেন নেপালের জার্মান রাষ্ট্রদূত ড. টমাস খ্রিঞ্জ। ডিনারের ফাঁকে তিনি খেলোয়াড়দের সঙ্গে কথা বলেন এবং মেয়েদেরকে শুভ কামনা জানান। 

এরপর শুরু হয় গানের পর্ব। হালের জনপ্রিয় গান ‘সাদা সাদা কালা কালা’, পুরনো দিনের গান ‘সাঁধের লাউ বানাইল মোরে বৈরাগী’, ‘লোকে বলে বলে রে ঘর বাড়ি ভালা না আমার’, ‘মধু হই হই বিষ খাওয়াইলা’-এমন অনেক গান মেয়েরা গেয়েছেন গলা ছেড়ে। 

অনুষ্ঠানের শেষ দিকে খেলোয়াড়, কোচ, কর্মকর্তাদের হাতে উপহার তুলে দেন রাষ্ট্রদূত। ফুরফুরে সময় কাটিয়ে ৯টার দিকে হোটেলের পথে রওনা দেয় বাংলাদেশ দল। 

বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে বুধবার দুপুর ১টা ৫০ মিনিটে দিকে ঢাকার পা রাখবে দল। সেখানে হবে শিরোপা জয়ের মূল উৎসব; ছাদ খোলা বাস অপেক্ষা করছে সাবিনা-কৃষ্ণাদের জন্য।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক