শ্বাসরুদ্ধকর টাইব্রেকারে জিতে ফাইনালে রিয়াল

টাইব্রেকারে রিয়াল মাদ্রিদের সামনে দেয়াল হয়ে দাঁড়াতে পারলেন না ভালেন্সিয়া গোলরক্ষক।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Jan 2023, 10:03 PM
Updated : 11 Jan 2023, 10:03 PM

করিম বেনজেমার সফল স্পট কিকে প্রথমার্ধে এগিয়ে গেল রিয়াল মাদ্রিদ। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে গোল শোধ করে দিল ভালন্সিয়া। বাকি সময়ে আর জালের দেখা পেল না কোনো দলই। ম্যাচ গড়াল শ্বাসরুদ্ধকর টাইব্রেকারে। থিবো কর্তোয়ার দৃঢ়তায় সেখানে শেষ হাসি হাসল কার্লো আনচেলত্তির দল।

স্প্যানিশ সুপার কাপের প্রথম সেমি-ফাইনালে বুধবার রাতে নির্ধারিত সময়ের পর অতিরিক্ত সময়েও ম্যাচ ১-১ ড্র থাকে। পরে সৌদি আরবের কিং ফাহাদ ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জিতেছে রিয়াল। নতুন ফরম্যাটে সুপার কাপ হওয়ার পর ইউরোপের সফলতম দলটি তৃতীয়বারের মতো গেছে ফাইনালে।

ম্যাচজুড়ে ভালেন্সিয়ার পোস্টের নিচের দেয়াল হয়ে থাকা জর্জিও মামারদাশভিলি টাইব্রেকারে পারেননি ত্রাতা হতে। শুরুর চার শটেই জালের দেখা পান রিয়াল অধিনায়ক বেনজেমা, লুকা মদ্রিচ, টনি ক্রুস ও বদলি নামা ফরোয়ার্ড মার্কো আসেনসিও।

ভালেন্সিয়ার এদিনসন কাভানি, ইলাইশ মোরিবা ও হুগো গিয়ামোন জালের দেখা পান। ইরে জোমের্ত উড়িয়ে মারেন আর হোসে গায়া শেষ সুযোগ নষ্ট করেন কর্তোয়ার গায়ে মেরে।

ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে লিগে হেরে যাওয়া ম্যাচের একাদশে চার পরিবর্তন আনেন আনচেলত্তি। লুকাস ভাসকেস, নাচো, কামাভিঙ্গা ও রদ্রিগোকে খেলান শুরু থেকে। মাঝমাঠের বড় ভরসা মদ্রিচকে বেঞ্চে রাখেন আনচেলত্তি।

আক্রমণভাগে বেনজেমা, ভিনিসিউসদের বিবর্ণতা ফুটে ওঠে শুরু থেকে। দশম মিনিটে ফেদে ভালভেরদের থ্রু পাস ধরে আলতো টোকায় কিছুটা এগিয়ে নিতে চেয়েছিলেন রদ্রিগো, কিন্তু বলের গতি বেশি হওয়ায় আর সাথে দুজন ডিফেন্ডার সেঁটে থাকায় শট নিতে দেরি করে ফেলেন। শেষ পর্যন্ত তার শট যায় বাইরে।

একটু পর পায়ের কারিকুরিতে এক ডিফেন্ডারের পায়ের ফাঁক দিয়ে বল বের করে নিয়েছিলেন বেনজেমা। কিন্তু জায়গা তৈরি করেও শট পোস্টে রাখতে পারেননি। উড়ে যায় বাইরে দিয়ে। ষোড়শ মিনিটে পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায় ভালভেরদের দূরপাল্লার শট।

রিয়ালের আক্রমণ সামলাতে ব্যস্ত থাকা ভালেন্সিয়া একটু একটু করে গুছিয়ে ওঠে। ১৯তম মিনিটে প্রথম ভালো আক্রমণটিও শাণায় তারা। গায়ার ক্রসে কাভানির হেড আটকান গোলরক্ষক কর্তোয়া। একটু পরই তনি লাতো বক্সে বল হারানোর পর কর্তোয়ার পায়ে লেগে পড়ে গিয়ে পেনাল্টির দাবি তোলেন, সাড়া দেননি রেফারি।

কিছুক্ষণের জন্য হারিয়ে ফেলা ছন্দ রিয়াল ফিরে পায় দ্রুতই। ৩০তম মিনিটে গতিময় ভিনিসিউস বাঁ দিক দিয়ে আক্রমণে উঠে বল নিয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন। কিন্তু দূরূহ কোণ থেকে এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের শট বাইরের জাল কাঁপায়।

৩৯তম মিনিটে বক্সের ভেতরে বেনজেমাকে বিপজ্জনক ট্যাকল করেন জোমের্ত। ট্যাকলের ভয়াবহতা বুঝতে পেরেই ক্ষমা চেয়ে পান হলুদ কার্ড। সফল স্পট কিকে রিয়ালকে এগিয়ে নেন বেনজেমা। প্রথমার্ধে রিয়ালের এই একটি শটই ছিল লক্ষ্যে!

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে কাভানির শট জালে জড়ালেও অফসাইডের কারণে গোল হয়নি। এগিয়ে থাকার স্বস্তি নিয়ে বিরতিতে যায় রিয়াল।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ ঠিকঠাক মুঠোয় রাখতে কামাভিঙ্গাকে তুলে মদ্রিচকে নামান আনচেলত্তি। কিন্তু রিয়াল কোচের এগিয়ে থাকার স্বস্তিও উবে যায় শুরুতেই। তনির নিখুঁত ক্রসে বল বাতাসে থাকা অবস্থায় দূরের পোস্টে ফাঁকায় থাকা ভালেন্সিয়ার ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড সামুয়েল লিনো দারুণ শটে জাল খুঁজে নেন।

এরপর দুই দলের খেলার গতি কমে যায় আচমকাই। গোলের জন্য তেমন কোনো আক্রমণই পর্যন্ত শাণাতে পারছিল না কোনো দল! ৮৮তম মিনিটে ভালভেরদের ক্রসে বেনজেমার হেড উপরের জাল কাঁপানো ছিল নির্ধারিত সময়ে উল্লেখ করার মতো আক্রমণ।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের পঞ্চম মিনিটে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেওয়ার সুর্বণ সুযোগ পেয়েছিলেন ভিনিসিউস। কিন্তু বক্সে ভালেন্সিয়ার এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে বল যায় তার পায়ে। গোলরক্ষককে একা পেয়েও ছিলেন তিনি। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের দুর্বল শট আটকে ভালেন্সিয়ার ত্রাতা গোলরক্ষক মামারদাশভিলি। এরপর ভালভেরদের দূরপাল্লার শটও ঝাঁপিয়ে পড়ে আটকান তিনি। অতিরিক্ত সময়ে গড়ায় ম্যাচ।

অতিরিক্ত সময়ের শুরুতে বক্সের ঠিক উপর থেকে ভিনিসিউসের শট ফেরান মামারদাশভিলি। গোলের জন্য মরিয়া রিয়ালের চাপ পাহাড়সমান দৃঢ়তায় সামলাতে থাকেন জর্জিয়ান এই গোলরক্ষক। এ অর্ধের শেষ দিকে ক্রুসের জোরাল শট আটকে ভালেন্সিয়ার ২০০৮ সালের পর আবারও ফাইনাল খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখেন তিনি।

১১০ মিনিটে ফ্রান পেরেসের শট কোনোমতে আটকে রিয়ালকে স্বস্তিতে রাখেন কর্তোয়া। শেষ দিকে রিয়াল প্রচণ্ড চাপ দিলেও ভাঙতে পারেনি ভালেন্সিয়ার জমাট রক্ষণ। ম্যাচের ভাগ্য গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানেই হার মানে রিয়ালের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লড়ে যাওয়া জেন্নারো গাত্তুসোর দল।

লা লিগা ও কোপা দেল রের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ মিলিয়ে চার দল নিয়ে হওয়া এই আসরে আগামী রোববার ফাইনালে রিয়াল মুখোমুখি হবে বার্সেলোনা ও রিয়াল বেতিসের মধ্যের দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে জয়ী দলের বিপক্ষে। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় মুখোমুখি হবে এই দুই দল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক