১৯৯০ বিশ্বকাপ ফাইনালের জার্মান নায়ক ব্রেমার প্রয়াণ

মিউনিখের একটি ক্লিনিকে নেওয়া হলেও বাঁচানো যায়নি ১৯৯০ বিশ্বকাপ ফাইনালের একমাত্র গোলদাতাকে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Feb 2024, 10:02 AM
Updated : 20 Feb 2024, 10:02 AM

ফুটবল ইতিহাসের সেরা লেফট-ব্যাকদের একজন ও বিশ্বকাপজয়ী জার্মান তারকা আন্দ্রেয়াস ব্রেমা আর নেই। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ৬৩ বছর বয়সে মারা গেছেন সাবেক এই ফুটবলার ও কোচ।

জার্মান পত্রিকা বিল্ডের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মিউনিখে নিজের বাসস্থানের নিকটবর্তী একটি ক্লিনিকে নেওয়া হয়েছিল ব্রেমাকে। কিন্তু সাহায্য দ্রুত সময়ে পৌঁছায়নি, ফলে বাঁচানো যায়নি তাকে।

জাতীয় দলের জার্সিতে এক দশক ধরে আলো ছড়ানো ব্রেমা ক্লাব ক্যারিয়ারে খেলেছেন বায়ার্ন মিউনিখ ও ইন্টার মিলানের মতো ক্লাবে। উপহার দিয়েছেন দারুণ পারফরম্যান্স। খেলতে পারেন মাঠের বিভিন্ন জায়গায়। পরিচিত ছিলেন নিখুঁত ক্রস, স্পট কিক ও ফ্রি কিকে ঠাণ্ডা মাথার বুলেট গতির লক্ষ্যভেদী শটের জন্য। তবে, ফুটবল জগতে তিনি সবচেয়ে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন ১৯৯০ বিশ্বকাপের ফাইনালের ম্যাচজয়ী গোলদাতা হিসেবে।

আর্জেন্টিনার বিপক্ষে সেদিন ম্যাচের শেষ দিকে পেনাল্টি থেকে গোলটি করেছিলেন ব্রেমা। ১-০ ব্যবধানের জয়ে শিরোপা উল্লাসে মেতেছিল পশ্চিম জার্মানি।

হামবুর্গে জন্ম নেওয়া ব্রেমার ফুটবল ক্যারিয়ার শুরু বার্মবেক-উলেনহর্স্টে। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে দুর্দান্ত সময় কাটিয়েছিলেন কাইজারলাউটার্নে। সেখানে পাঁচ বছর খেলে দুই বছরের জন্য যোগ দেন বায়ার্নে, সেখানে লিগ শিরোপা জেতেন তিনি।

লেফট-ব্যাক পজিশনে অসাধারণ সামর্থ্যের জোরে ১৯৮৮ সালে নাম লেখান ইন্টার মিলানে, দুই তারকা সতীর্থ লোথার মাথেউস ও ইয়ুর্গেন ক্লিন্সমানের সঙ্গে। ইতালিয়ান ক্লাবটির হয়ে জেতেন সেরি আ ও উয়েফা কাপ (বর্তমানের ইউরোপা লিগ)।

ইন্টারে আরও তিন বছর এবং রেয়াল জারাগোজায় এক মৌসুম খেলে ব্রেমা ফিরে যান কাইজারলাউটার্নে। ১৯৯৮ সালে দলটির হয়ে আবারও বুন্ডেসলিগা জয়ের স্বাদ পান। জার্মানির শীর্ষ লিগে মোট ৩০১ ম্যাচ খেলে ক্লাব ক্যারিয়ারের ইতি টানেন তিনি।

অনেকের মতেই, জার্মান ফুটবলের সত্যিকারের এক কিংবদন্তি ব্রেমা। আন্তর্জাতিক ফুটবলে দেশটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়দের একজন ছিলেন তিনি। জাতীয় দলের হয়ে ৮৬টি ম্যাচ খেলে গোল করেন আটটি।

খেলোয়াড়ী জীবনের ইতি টেনে কোচিং ক্যারিয়ারেও নাম লিখিয়েছিলেন ব্রেমা। তবে ডাগআউটে সময়টা তেমন ভালো কাটেনি তার। তাই দীর্ঘ হয়নি তার কোচিং ক্যারিয়ার।