উয়েফা প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দাঁড়াবেন না চেফেরিন

২০২৭ সালের পর ইউরোপীয় ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রধানের দায়িত্বে আর থাকতে আগ্রহী নন তিনি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Feb 2024, 02:26 PM
Updated : 8 Feb 2024, 02:26 PM

চলতি মেয়াদ শেষের পর উয়েফা প্রধানের দায়িত্ব আর পালন করতে চান না আলেকসান্দের চেফেরিন। তাই ইউরোপীয় ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে না দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। 

প্যারিসে বৃহস্পতিবার উয়েফা কংগ্রেসের পর সংবাদ সম্মেলনে এই সিদ্ধান্তের কারণ তুলে ধরেন ৫৬ বছর বয়সী চেফেরিন। 

“আমি প্রায় ৬ মাস আগে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ২০২৭ সালে প্রার্থী হিসেবে দাঁড়াব না। কারণ একটা সময় পর সব সংস্থারই নতুন নেতৃত্বের প্রয়োজন। তবে মূল কারণ হলো আমি ৭ বছর ধরে পরিবার থেকে দূরে এবং আরও তিন বছর তাদের থেকে দূরে থাকতে হবে।” 

টানা তৃতীয় মেয়াদে গত বছর উয়েফার প্রধান নির্বাচিত হয়েছিলেন চেফেরিন, সেটাও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়। স্লোভেনিয়ান এই আইনজীবীর চার বছরের চলতি মেয়াদ ২০২৭ সাল পর্যন্ত।

২০১৬ সালে প্রথমবার উয়েফা প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন চেফেরিন। সে সময় মিশেল প্লাতিনির স্থলাভিষিক্ত হন তিনি। দুর্নীতির অভিযোগে ২০১৫ সালে ফুটবল সংক্রান্ত সব ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে নিষিদ্ধ হন প্লাতিনি। পরে আপিল করে হেরে যাওয়ায় ২০১৬ সালে উয়েফার দায়িত্ব ছাড়েন সাবেক এই ফরাসি ফুটবলার। 

২০১৯ সালে দ্বিতীয় মেয়াদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পুনরায় চার বছরের জন্য উয়েফার প্রেসিডেন্ট হন চেফেরিন। 

দীর্ঘ এই পথচলায় নানা চ্যালেঞ্জ উতরে গেছেন তিনি। সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছিলেন ২০২১ সালের এপ্রিলে। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ইউরোপিয়ান সুপার লিগের ঘোষণা দিয়েছিল ইউরোপের ১২টি ক্লাব। তবে ভক্ত-সমর্থক থেকে শুরু করে ফুটবল সংস্থাগুলোর প্রবল চাপ এবং সাবেক-বর্তমান ফুটবলারদের তীব্র সমালোচনার মুখে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ভেস্তে যায় তাদের পরিকল্পনা।