মেসির জন্য অলিম্পিকসে খেলার ‘দুয়ার খোলা’

লিওনেল মেসিকে অলিম্পিকসে পেতে রোমাঞ্চ নিয়ে অপেক্ষায় তার বন্ধু ও আর্জেন্টিনার অলিম্পিকস দলের কোচ হাভিয়ের মাসচেরানো।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Feb 2024, 05:24 AM
Updated : 13 Feb 2024, 05:24 AM

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলকে যে কোনো পর্যায়ের লড়াইয়ে হারাতে পারাই বিশেষ কিছু। অলিম্পিকসের মূল পর্বে জায়গা করে নেওয়ার লড়াইয়ে ব্রাজিলকে হারানোর রোমাঞ্চ যেমন ছুঁয়ে গেছে লিওনেল মেসিকে। জয়ী আর্জেন্টিনা অনূর্ধ্ব-২৩ দলের একটি ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে এই মহাতারকা লিখেছেন, ‘ভামোস।’ তার উচ্ছ্বাসটাও তাতে ফুটে উঠছে। তবে আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ককে নিয়ে মূল আলোচনা আপাতত তার অলিম্পিকসে খেলার সম্ভাবনা ঘিরে।

টুকটাক আলোচনা আগেও ছিল। ব্রাজিলকে হারিয়ে আর্জেন্টিনা প্যারিস অলিম্পিকসের মূল পর্বে জায়গা করে নেওয়ার পর সেই আলোচনা আরও উচ্চকিত হয়েছে। অলিম্পিকসের বাছাইপর্বে অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে খেলতে হলেও মূল পর্ব বেশি বয়সী ফুটবলার খেলানো যায় ৩ জন। বিশ্ব ফুটবলের অনেক বড় তারকাই খেলেছেন অলিম্পিকসে।

২০০৮ সালে বেইজিং অলিম্পিকসের সোনাজয়ী আর্জেন্টিনা দলে ছিলেন মেসি। এবার প্যারিস অলিম্পিকসেও তাকে পেতে চান এখনকার দলের কোচ ও মেসির সাবেক সতীর্থ হাভিয়ের মাসচেরানো।

“লিওর সঙ্গে আমার যে সম্পর্ক, আমার বন্ধুত্বের কথা সবারই জানা। তার মতো একজন ফুটবলারের জন্য আমাদের সঙ্গী হওয়ার দুয়ার খোলা আছে সবসময়ই। তবে অবশ্যই ব্যাপারটি নির্ভর করবে তার ওপর, তার অন্যান্য অঙ্গীকারের ওপর।”

মেসির অলিম্পিকসে খেলার ক্ষেত্রে বড় একটি বাধা হতে পারে তার অন্যান্য ব্যস্ততাই। জুন-জুলাইয়ে কোপা আমেরিকায় খেলার কথা তার। এই আসর শেষ হবে ১৪ জুলাই। অলিম্পিকসের উদ্বোধন এর ১০ দিন পরই। কোপার কারণে এমনিতেই মেজর লিগ সকারে ইন্টার মায়ামির বেশ কিছু ম্যাচ খেলতে পারবেন না তিনি।

তবু তার অলিম্পিকস খেলার সম্ভাবনা নিয়ে রোমাঞ্চিত অনেকেই। আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রধান টমাস বাখ তো বলেই রেখেছেন, “তাকে গেমসে ফিরে পাওয়া হবে অলিম্পিকস গেমসের জন্য অসাধারণ ব্যাপার।”

আর্জেন্টিনার অনূর্ধ্ব-২৩ দলের মিডফিল্ডার তিয়াগো আলমাদা স্বপ্ন বুনতে শুরু করে দিয়েছেন।

“আশা করি, অলিম্পিকসে খেলার ইচ্ছা ও তাড়না তার থাকবে। সময় হলেই সবকিছু বোঝা যাবে। তবে তার সঙ্গে খেলতে পারলে তা হবে স্বপ্নের মতো।”

দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চল থেকে এবার আর্জেন্টিনা ছাড়া মূল পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে প্যারাগুয়ে। গত দুই অলিম্পিকমের সোনাজয়ী ও গত চার আসরেই পদক জয় করা ব্রাজিল এবার ছিটকে গেছে বাছাই থেকে।