‘মিথ্যা বরদাশত করব না’, দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে বললেন শাভি

মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন বার্সেলোনা কোচ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 March 2024, 04:54 PM
Updated : 29 March 2024, 04:54 PM

দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন বার্সেলোনা কোচ শাভি এর্নান্দেস। তাকে নিয়ে মিথ্যা তথ্য ছড়ানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। 

সম্প্রতি প্রকাশিত একটি খবরে বলা হয়, শাভি তার কোচিং স্টাফদেরকে তাদের ফোন টেবিলে রাখতে বলেছিলেন, যাতে তার স্টাফদের কাছ থেকে কোনো তথ্য ফাঁস হয়েছে কি-না, সেটা তিনি বুঝতে পারেন।

অন্য একজন সাংবাদিক দাবি করেন, শাভিকে নিয়ে প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে অভিযোগ করে তাকে বার্তা পাঠিয়েছিলেন বার্সেলোনা কোচ। তখনই অবশ্য শাভির ঘনিষ্ঠ সূত্র বিষয়টি অস্বীকার করেছিলেন এবং ওই সংবাদিক পিছু হটেছিলেন।

ওই দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে শাভি মামলা করেছেন বলে খবর আসছিল স্পেনের সংবাদমাধ্যমে। লা লিগায় লাস পালমাসের বিপক্ষে ম্যাচ সামনে রেখে শুক্রবারের সংবাদ সম্মেলনে এসে শাভি নিজেও নিশ্চিত করেন বিষয়টি, একই সঙ্গে দেন হুঁশিয়ারি। 

“আমি সমালোচনা বুঝতে পারি, কিন্তু সবকিছুর একটা সীমা আছে। মিথ্যা বা কল্পিত কিছু আমি বরদাশত করব না। এখনই বলার সময় এসেছে যে, যথেষ্ট হয়েছে, এগুলো বড় মিথ্যা, তাই এখনই ব্যবস্থা নেওয়ার সময়।”

এই মৌসুমে বেশ কয়েকবার গণমাধ্যমের সমালোচনা করতে দেখা গেছে শাভিকে। গত ডিসেম্বরে তিনি বলেছিলেন, নেতিবাচক সংবাদ তার দলের পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলছে।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালে ওঠার পর একটি নিবন্ধের কড়া সমালোচনা করেন তিনি। ওই নিবন্ধে বার্সেলোনাকে প্রতিযোগিতাটির ‘তামাশা’ বলে উল্লেখ করা হয়েছিল।

এই মৌসুমে বার্সেলোনার পারফরম্যান্স নিয়ে মাস দুয়েক আগেও সমালোচনা ছিল তুমুল। এর মধ্যে গত জানুয়ারিতে হুট করেই শাভি জানিয়ে দেন, মৌসুম শেষে ক্লাব ছাড়বেন তিনি। তাকেও তখন দাঁড় করানো হয় কাঠগড়ায়।

তারপর থেকে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ১০ ম্যাচ খেলে একটিও হারেনি বার্সেলোনা। ২০২০ সালের পর প্রথমবার তারা পৌঁছে গেছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ আটে। লা লিগায় উঠে এসেছে দ্বিতীয় স্থানে, যদিও শীর্ষে থাকা রেয়াল মাদ্রিদের চেয়ে ৮ পয়েন্টে পিছিয়ে আছে কাতালান দলটি।

গত মৌসুমে বার্সেলোনাকে লা লিগা শিরোপা জেতানো শাভিকে তার চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত বদলানোর কথা বলেছেন অনেকেই। তবে নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থাকার কথা আরও একবার বললেন দলটির সাবেক এই মিডফিল্ডার।

“আমি কৃতজ্ঞ যে লোকেরা আমাকে থাকতে দেখতে চায়, কিন্তু কিছুই পরিবর্তন হয়নি, আমি ক্লাবের সর্বোত্তম স্বার্থের কথা ভাবছি।”