কেন্দ্রে আসতে ভোটারদের বাধা দিলেই শাস্তি: ইসি হাবিব

এসময় তিনি বলেন, “আমার আত্মাটা তৃপ্তি পাইত, যদি নির্বাচনে সবাই আসত।”

ঝালকাঠি প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Nov 2023, 11:38 AM
Updated : 25 Nov 2023, 11:38 AM

কেন্দ্রে আসতে ভোটারদের বাধাদানকারীদের শাস্তির মুখে পড়তে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. আহসান হাবিব খান।

তিনি বলেছেন, “নির্বাচন কমিশন একটি সাংবিধানিক পদ; সংবিধান সুরক্ষা আমাদের দায়িত্ব। আর ভোটার উপস্থিত করানো প্রার্থীদের দায়িত্ব। তবে ভোটারদের কেন্দ্রে আসতে যদি কেউ বাধা দেয় তার জন্য তিন থেকে সাত বছর কারাদণ্ডের আইন করা হয়েছে। আর সেভাবেই আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছি।”

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে শনিবার দুপুরে ঝালকাঠি, পিরোজপুর ও বরগুনা জেলার নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তাদের সঙ্গে  দিকনির্দেশনামূলক সভা শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন। ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আহসান হাবিব খান বলেন, “আমরা ভোটারদের আশ্বস্ত করতে চাই, তারা নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিতে পারবেন। সে ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে।” 

ডিসি এসপিরা স্বাধীনভাবে কাজ করবেন জানিয়ে তিনি বলেন, “আমরা ডিসি-এসপি, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সবার কাছ থেকে শতভাগ সহায়তা পেয়ে সুন্দর নির্বাচন করতে চাই। একজন ভোটার ভোটকেন্দ্র পর্যন্ত আসছেন কিনা, বাধাগ্রস্ত হচ্ছেন কিনা এবং ভোটটি সঠিকভাবে দিতে পারলেন কিনা এটা খেয়াল রাখতে হবে।

“ভোটার ভোট দিয়ে সাংবাদিকদের কাছে যদি বলেন, ‘ভোট সুষ্ঠু হয়েছে’, এটাই আমাদের সার্থকতা। আর যদি বলেন, ‘কেন্দ্রে অরাজকতা চলছে, পেশীশক্তির প্রভাব চলছে’, তাহলে কিন্তু সবকিছুই জিরো।”

বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার প্রশ্নে ইসি বলেন, “আমরা (কমিশন) প্রথম থেকে ধাপে ধাপে তাদের ডেকেছি; আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিক ভাবে চায়ের দাওয়াত দিয়েছি। কিন্তু তারা কেউ সাড়া দেয়নি। ” 

এক প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার আহসান হাবিব বলেন, “আমরাও চাই, দেশের জনগণও চায় নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ। কিন্তু ওনাদের (বিএনপি) এজেন্ডা একটু আলাদা। এই জিনিসটা সংবিধানের মধ্যে নেই, তা আমাদের কাজও না। ...এটা রাজনৈতিক দলের মধ্যে বসে যেটা সিদ্ধান্ত হবে সেটাকেই আমরা স্বাগত জানাব। তবে আমার আত্মাটা তৃপ্তি পাইত যদি নির্বাচনে সবাই আসত।”

বিএনপি নির্বাচনে আসতে চাইলে তফশিল পেছানোর ব্যাপারে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

এসময় অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও সুন্দর পরিবেশে দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন উপহার দেওয়ার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন এ নির্বাচন কমিশনার।

এর আগে ঝালকাঠি জেলা প্রশাসন আয়োজিত সভায় দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক ফারাহ্ গুল নিঝুম সভাপতিত্ব করেন।

সভায় বরিশালের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মো. পারভেজ হাসান, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সেক্টর কমান্ডার কর্নেল রেজাউল কবির, পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক মো. জাহেদুর রহমান, বরগুনার জেলা প্রশাসক মো. রফিকুল ইসলাম, বিজিবি কর্মকর্তা লে. কর্নেল খোরশেদ আনোয়ার, বরগুনার পুলিশ সুপার মো. আব্দুস সালাম, ঝালকাঠির পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আফরুজুল হক টুটুল, পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শফিউর রহমান, বরিশাল আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আলাউদ্দিনসহ বরগুনা, পিরোজপুর এবং ঝালকাঠি এই তিন জেলার নির্বাচন কর্মকর্তা, গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা, আনসার এবং র‌্যাব কর্মকর্তারা ছিলেন।