পুলিশের মামলায় আদালতে নিতে সাংবাদিকের কোমরে রশি

ফেনীর এ ঘটনায় জেলায় কর্মরত সাংবাদিক ও সচেতন মহল ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

ফেনী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Nov 2022, 07:25 PM
Updated : 22 Nov 2022, 07:25 PM

ফেনীতে পুলিশের একটি মামলায় এক সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করে হাতকড়া পরিয়ে কোমরে রশি দিয়ে বেঁধে আদালতে তুলেছে; পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। 

এ ঘটনায় জেলায় কর্মরত সাংবাদিক ও সচেতন মহল ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক গোলাম জিলানি জানান, সোমবার মধ্যরাতে দাগনভূঞা উপজেলার পূর্বচন্দ্রপুর ইউনিয়নের গজারিয়া গ্রামের বাড়ি থেকে সাংবাদিক এসএম ইউসুফ আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়; মঙ্গলবার দুপুরে তাকে আদালতে তোলা হয়। 

দুই দশক ধরে সাংবাদিকতা পেশায় থাকা এসএম ইউসুফ আলী বর্তমান সময়ে ‘দৈনিক অধিকার’ পত্রিকায় ফেনী ব্যুরো প্রধান ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘ফেনী রিপোর্ট’-এর সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। 

ফেনী জজ আদালতের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ও আসামির ব্যক্তিগত কুশলী এম. শাহজাহান সাজু জানান, ছাগলনাইয়া থানায় দায়ের করা বিশেষ ক্ষমতা আইনের একটি মামলায় ভুলক্রমে হাজিরা দিতে না পারায় ইউসুফ আলীর জামিন বাতিল করে আদালত। পরে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে পুলিশ সোমবার রাত দেড়টার দিকে তাকে ঘুম থেকে তুলে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। 

এদিকে ইউসুফ আলীর গ্রেপ্তারের খবরে ফেনীতে গণমাধ্যম কর্মী ও সচেতন মহলে তীব্র ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। 

মঙ্গলবার দুপুরে দাগনভূঞা থানা পুলিশ তাকে কোমরে রশি বেঁধে আদালত প্রাঙ্গণে নিয়ে এলে সাংবাদিকরা প্রতিবাদ জানান। 

ফেনী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু তাহের বলেন, একজন গণমাধ্যমকর্মীকে এভাবে ধরে কোমরে রশি বেঁধে আদালতে তোলা ন্যাক্কারজনক। এটা সাংবাদিকতা পেশার প্রতি অবজ্ঞার বহিঃপ্রকাশ। 

ইয়ুথ জার্নালিস্ট ফোরাম বাংলাদেশ (ওয়াইজেএফবি) এর কেন্দ্রীয় সভাপতি তানভীর আলাদিন বলেন, এক শ্রেণির অতি উৎসাহী কর্মকর্তা পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে এ ধরনের অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। 

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জসিম মাহমুদ সংশ্লিষ্ট ওই পুলিশ কর্মকর্তার শাস্তি দাবি করেছেন। 

সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন ফেনী শাখার সভাপতি লক্ষ্মণ বণিক বলেন, একজন সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করে এভাবে অপদস্ত করা কোনোভাবেই আইনসম্মত নয়। 

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দাগনভূঞা থানার ওসি মো. হাসান ইমাম বলেন, কোমরে রশি বেঁধে আদালতে আনার বিষয়টি তার অগোচরে হয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা নিয়মানুযায়ী গ্রেপ্তার করে সাংবাদিককে আদালতে পাঠিয়েছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক