খতনার সময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ, অভিভাবকের ক্ষোভ

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে বলে সিভিল সার্জন জানিয়েছেন।

নোয়াখালী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 Feb 2024, 07:33 PM
Updated : 21 Feb 2024, 07:33 PM

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে খতনা করাতে গিয়ে চিকিৎসকের ভুলে অতিরিক্ত কেটে ফেলা ও রক্তক্ষরণের অভিযোগ করেছেন অভিভাবক।

বুধবার দুপুরে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে বলে জেলা সিভিল সার্জন মাসুম ইফতেখার জানান।

তিনি বলেন, “শিশুটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তবে সে শঙ্কামুক্ত।”

খতনা করাতে গিয়ে রাজধানীতে দুই শিশুর মৃত্যু নিয়ে আলোচনার মধ্যে এ খবর এল।

ভুক্তভোগী শিশু আল নাহিয়ান তাজবীব (৭) উপজেলার চরকাঁকড়া ইউনিয়নের আলমগীর হোসেন বাদলের ছেলে। সে বসুরহাট পৌরসভা এলাকার চাইল্ড কেয়ার স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্র।

শিশুটির বড় চাচা শেখ ফরিদ বলেন, “শিশুটির খতনা উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার বিজয় কুমার দে ও সৌরভ ভৌমিকের তত্ত্বাবধানে হয়। তারা শিশুটির জননাঙ্গের অধিক পরিমাণ চামড়া কেটে ফেলেন।

“এতে তার অতিরিক্ত রক্তপাত শুরু হয়। তখন শিশুটির চিৎকার শুনে তার বাবা ভেতরে যান। গিয়ে দেখেন, রক্তে কেবিনের বিছানা ভিজে গেছে।”

একপর্যায়ে কৌশলে দুই উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার পালিয়ে যান অভিযোগ করে শেখ ফরিদ বলেন, “একটা হাসপাতালে এমন ঘটনা কখনও কাম্য হতে পারে না। সরকারি হাসপাতালে যদি শিশুরা নিরাপদ না হয় তাহলে আমরা কোথায় যাব।”  

জেলা সিভিল সার্জন মাসুম ইফতেখার বলেন, “ঘটনাটি জানার পরপরই কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম শিশুটিকে দেখতে যান। খতনার সময় জননাঙ্গের চামড়া একটু বেশি কেটে যাওয়ার কারণে অতিরিক্ত রক্তপাত হয়েছে।”

যাদের নামে অভিযোগ উঠেছে তদন্ত করে তাদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান সিভিল সার্জন।