পিরোজপুরে ‘ঘরে স্বামীর লাশ রেখে পালানো’ স্ত্রী গ্রেপ্তার

শনিবার সকালে প্রতিবেশিরা আবু সালেহ ফরাজীর মৃতদেহ ঘরে পড়ে থাকতে দেখে থানায় খবর দেন।

পিরোজপুর প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 July 2022, 06:38 PM
Updated : 31 July 2022, 06:38 PM

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় দিনমজুর হত্যা মামলার প্রধান আসামি নিহতের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

রোববার সকালে জেলার ভাণ্ডারিয়া উপজেলার উত্তর তেলিখালী এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে মঠবাড়িয়া থানার এসআই নুর আমিন জানান।

গ্রেপ্তার কুকিলা বেগম (৩০) মঠবাড়িয়া উপজেলার উত্তর মিঠাখালী গ্রামের আলো ফরাজীর মেয়ে।

মঠবাড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইব্রাহীম জানান, গত শুক্রবার রাতের কোনো এক সময় আবু সালেহ ফরাজীর লাশ ঘরে ফেলে রেখে তার তৃতীয় স্ত্রী কোকিলা বেগম আত্মগোপন করেন। শনিবার সকালে উপজেলার উত্তর মিঠাখালী গ্রামের দিনমজুর আবু সালেহর ঘর থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের প্রথম তরফের মেয়ে সালমা আক্তার লিপি বাদী হয়ে শনিবার দুপুরে মঠবাড়িয়া থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

“পরে কোকিলা বেগমকে তার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।”

প্রতিবেশীরা জানান, প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর পাঁচ বছর আগে আবু সালেহ ফরাজী একই গ্রামের আলো ফরাজীর মেয়ে কোকিলা বেগমকে বিয়ে করেন। তবে এ দম্পতির কোনো সন্তান নেই।

“সম্প্রতি পারিবারিক কলহের জেরে কোকিলা তার বাবার বাড়ি চলে যান। গত শুক্রবার স্ত্রীকে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসেন আবু সালেহ। কোকিলা এসে দেখেন, এনজিও থেকে পাওয়া একটি গাভি তাকে না জানিয়ে বিক্রি করে দিয়েছেন আবু সালেহ। এ নিয়ে তাদের মধ্যে আবারও ঝগড়া হয়।

এর জেরে আবু সালেহকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি নূরুল ইসলাম বাদল বলেন, “গ্রেপ্তার কোকিলা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক