জাবির বঙ্গমাতা হলে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ

“তাদের ভাষ্য হলো হল প্রাধ্যক্ষ কিংবা হল সুপাররা হলের কিছুই না, রুমের ব্যাপারে হলের সিনিয়ররা যা বলবে তাই সঠিক।”

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 August 2022, 05:42 PM
Updated : 10 August 2022, 06:28 PM

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের কয়েকজন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগ ওঠেছে।

বুধবার হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মুজিবুর রহমান বরাবর এক অভিযোগ থেকে এ কথা জানা যায়।

অভিযোগে এক শিক্ষার্থী বলেন, মঙ্গলবার [৯ অগাস্ট] শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণে ৬৩১ নম্বর কক্ষ থেকে তিনি ২১৬ কক্ষে শিফট করেন। ২১৬ নম্বর কক্ষের নাফিসা জামান নিজে তার রুমে এই শিক্ষার্থীকে তুলে দিয়ে গেছেন।

“গতকাল আমার জিনিসপত্র নিয়ে সেই রুমে যাওয়ার পর রুমের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের উম্মে হাবিবা (ফুর্তি) আমাকে রুম থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। বের না হলে বের করে দেওয়ার হুমকি দেন। এই কথা হল সুপারকে জানাতে গেলে সেই সুযোগে তিনি আমার জিনিসপত্র রুম থেকে বের করে দেন।”

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর ভাষ্য, রুম থেকে বের না হলে ওই রুমের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের উম্মে হাবিবা (ফুর্তি) এবং ওই ব্লকে থাকা প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের ওলিজা (৪৭ ব্যাচ), একই বিভাগের বিথী (৪৭ ব্যাচ) অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন এবং মানসিকভাবে অপদস্ত করতে শুরু করেন।

“তাদের ভাষ্য হলো হল প্রাধ্যক্ষ কিংবা হল সুপাররা হলের কিছুই না, রুমের ব্যাপারে হলের সিনিয়ররা যা বলবে তাই সঠিক,” বলেন তিনি।

তিনি অভিযোগে বলেন, রাত ২টার দিকে ওই কক্ষ থেকে বের করে দেওয়া হয় তাকে। পরে সেখান থেকে আগের রুম ৬৩১ চলে গেলে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় অজ্ঞান হয়ে যান। রাতেই তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ভুক্তভোগী এই ছাত্রী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমার শ্বাসকষ্টের সমস্যা আছে। গতকালের ঘটনায় আমি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ি। রাতেই আমার সহপাঠীরা আমাকে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। এখনও পুরোপুরি সুস্থ হইনি। গতকাল রাতে ওই ব্লকে কীভাবে ওঠি সেটা দেখে নিবেন বলে আমাকে হুমকি দেন ৪৬ ব্যাচের খাদিজা আপু।”

এদিকে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তারা প্রত্যেকেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তাদের একজন প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের বীথি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি গতকাল। আমি এটার সাথে যুক্ত নই।”

আরেক শিক্ষার্থী ওলিজার বিরুদ্ধেও অভিযোগ করেছেন ওই শিক্ষার্থী। ওলিজাও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

তবে ২১৬ নম্বর কক্ষের আরেক শিক্ষার্থী রেশমা আফরিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “গতকাল রাতে আমার কক্ষে মানসিক নির্যাতনের মতো ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় ভুক্তভোগীর পাশাপাশি আমাকেও নানাভাবে মানসিক নির্যাতন করা হয়। এটার কারণ, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর পাশাপাশি আমিও এই রুমের জুনিয়র। আমি ভুক্তভোগীর পক্ষ নেওয়ায় আমাকেও রুম থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।”

এদিকে ওই হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মুজিবুর রহমান অভিযোগ পেয়েছেন বলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, “অভিযোগ হাতে পেয়েছি। যদি আসলেই র‌্যাগিং হয়ে থাকে তাহলে এই ব্যাপারে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। অতি দ্রুত এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক