ক্যাম্পাসে খুন হওয়া বুলবুলের মরদেহ বাড়ির পথে

বুলবুলের লাশবাহী গাড়ির সঙ্গে সহপাঠীরা যাচ্ছিলেন। এ সময় তারা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 10:33 AM
Updated : 26 July 2022, 10:33 AM

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে খুন হওয়া শিক্ষার্থী বুলবুল আহমেদের মরদেহ নিয়ে তার বাড়ি নরসিংদীর পথে রওনা হয়েছেন পরিবার।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার আজবাহার আলী শেখ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ময়নাতদন্ত শেষে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মাঠে মঙ্গলবার বেলা দেড়টায় বুলবুলের জানাজা হয়। পরে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সোমবার সন্ধ্যায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের ভেতরে অজ্ঞাত হামলাকারীর ছুরিকাঘাতে প্রাণ হারান বুলবুল। বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের সামনের টিলায় বুলবুলকে আহত অবস্থায় পাওয়া যায়। হাসপাতালে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনার বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেন তার সহপাঠীরা। খুনিদের গ্রেপ্তারে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটামও দিয়েছেন তারা।

নরসিংদীর চিনিসপুর ইউনিয়নের নন্দীপাড়া এলাকার ওহাব মিয়ার ছেলে ২২ বছর বয়সী বুলবুল শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন।

বুলবুলের লাশবাহী গাড়ি যখন বাড়ির পথে রওনা হয় তখন সঙ্গে তার সহপাঠীরাও যাচ্ছিলেন। বন্ধুর সঙ্গে শেষ যাত্রায় কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা।

এর আগে বেলা ১টার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. নিশারুল আরিফ সাংবাদিকদের বলেন, "আমরা আশপাশের এলাকায় খবর নিয়েছি। আমরা জোর দিচ্ছি প্রত্যক্ষদর্শীর সাক্ষ্যের ওপর। ঘটনাটি ছিনতাই হতে পারে, আবার পূর্ব পরিকল্পিতও হতে পারে। আমরা এখন পর্যন্ত বিষয়টি নিশ্চিত না।

“ঘটনাটি আমরা তদন্ত করছি, তদন্ত করে যারা জড়িত আছে, তাদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।”

তদন্ত কমিটি গঠন

বুলবুল খুনের ঘটনায় পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যাক্ষ অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক